ভর্তিচ্ছুদের জন্য জরুরি কিছু পরামর্শ

মো. হাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি), চট্টগ্রাম।

শনিবার , ২ ডিসেম্বর, ২০১৭ at ৬:৫৫ পূর্বাহ্ণ
878

প্রথমেই নগরীর সরকারি স্কুলগুলোতে ভর্তিচ্ছু সকল শিক্ষার্থীর প্রতি শুভেচ্ছা জানাই। ইতোমধ্যে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এবার কেবল অনলাইনেই এ আবেদনের সুযোগ রাখা হয়েছে। অনলাইনে আবেদনকালে কিছু বিষয় অবশ্যই আবেদনকারী ও তাদের অভিভাবকদের মাথায় রাখতে হবে।

ভুল সংশোধনের সুযোগ নেই : অনলাইন আবেদন ফরমে কোন ভুল হলে তা সংশোধনের সুযোগ থাকছে না। তাই শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান, অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণের সময় অবশ্যই সতর্ক হতে হবে। ফরম পূরণের পর সাবমিট দেয়ার আগে প্রয়োজনে একাধিকবার যাচাই করে নিতে হবে। আর সাবমিট করার পর আবেদনে ভুল ধরা পড়লে পুনরায় নতুন ভাবে (শুদ্ধ) আবেদন করতে হবে ভর্তিচ্ছুদের। তবে যেহেতু আবেদন সাবমিট করার পর টেলিটকের মাধ্যমে ফি প্রদানের নিয়ম রয়েছে, সেহেতু আবেদন ভুল হলে ফি প্রদান না করে পুনরায় নতুন করে সঠিক ভাবে আবেদন করা হবে বুদ্ধিমানের কাজ। সেক্ষেত্রে সঠিক আবেদনটির জন্য টেলিটকের মাধ্যমে ফি প্রদান করলেই চলবে।

তাড়াহুড়োর প্রয়োজন নেই : যেহেতু ১৪ ডিসেম্বর মধ্য রাত পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ রয়েছে, সেহেতু তাড়াহুড়ো করে আবেদনের প্রয়োজন নেই। সময় নিয়ে ধীরেসুস্থে আবেদন করাই শ্রেয়।

বালকবালিকার অংশটিতে মনোযোগ দিতে হবে : একমাত্র বাকলিয়া সরকারি স্কুলে বালক ও বালিকা উভয়েরই পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ আছে।

কিন্তু বালকদের জন্য একটি ক্লাস্টার এবং বালিকাদের আরেকটি ক্লাস্টারে বিভক্ত করা হয়েছে। আবেদনের সময় সঠিক ক্লাস্টারে আবেদন করতে হবে। বালক হয়ে বালিকাদের ক্লাস্টারে যাতে কেউ আবেদন না করে। বিষয়টি অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। গতবার এরকম কিছু ভুল ধরা পড়েছিল।

নবম শ্রেণি ভর্তিচ্ছুদের জন্য পরামর্শ : ৫ম থেকে ৮ম শ্রেণি ভর্তিতে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু নবম শ্রেণিতে ভর্তির নিয়ম জেএসসি/জেডিসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে। পরীক্ষা না হলেও নবম শ্রেণিতে ভর্তিচ্ছুদেরও এই সময়েই (১৪ ডিসেম্বরের মধ্যেই) আবেদন করতে হবে। পরে বোধহয় আবারো আবেদন নেয়া হবে, এমন ধারণা থেকে অনেকেই আবেদন করে না। যা মারাত্মক ভুল।

ফি না দিলে আবেদন গৃহীত হবে না : মনে রাখতে হবেঅনলাইনে আবেদন ফরমের সব অংশ পূরণ করে সাবমিট দেয়া হলেও ফি জমা না দেয়ার আগ পর্যন্ত অনলাইন আবেদনপত্র গৃহীত হবে না এবং প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে না।

মোবাইল নম্বর : অনলাইন আবেদন ফরমে প্রার্থীর প্রদত্ত মোবাইল নম্বরটিতে ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় যোগাযোগ সম্পন্ন করা হবে বিধায় মোবাইল নম্বরটি (অনলাইন আবেদনে দেওয়া) সার্বক্ষণিক সচল রাখতে হবে। আর এতে এসএমএসএর মাধ্যমে কোন নির্দেশনা আসলে তা তাৎক্ষনিক ভাবে অনুসরণ করতে হবে।

এসব পরামর্শ মাথায় রাখলে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কোন ধরনের ভোগান্তিতে পড়তে হবে না বলে আশা করি। সকল ভর্তিচ্ছুর জন্য শুভ কামনা।

x