ব্রেক্সিট পরবর্তীতে বাংলাদেশের সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণের আহ্বান

চেম্বারের সাথে যুক্তরাজ্যের প্রতিনিধিদলের মতবিনিময়

বৃহস্পতিবার , ২০ জুন, ২০১৯ at ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ
35

ইউকে-বাংলাদেশ কেটালিস্ট অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (ইউকেবিসিসিআই)’র প্রেসিডেন্ট বজলুর রশিদ এমবিই’র নেতৃত্বে ২২ সদস্যবিশিষ্ট বাণিজ্য প্রতিনিধিদল দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির বোর্ড অব ডাইরেক্টর্স ও ট্রেডবডি নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।
গতকাল ১৯ জুন ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত সভায় চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলমের সভাপতিত্বে প্রতিনিধিদল নেতা বজলুর রশিদ এমবিই, চেম্বারের প্রাক্তন সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আলী আহমেদ, নবনির্বাচিত পরিচালক এস. এম. আবু তৈয়ব, প্রাক্তন পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, প্রতিনিধিদল সদস্য ব্যারিস্টার আনোয়ার বাবুল, রহিম মিয়া ও অলি খান বক্তব্য রাখেন।
এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে চেম্বারের সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালকবৃন্দ এ. কে. এম. আকতার হোসেন, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মো. অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), মো. জহুরুল আলম, অঞ্জন শেখর দাশ, মো. শাহরিয়ার জাহান, মো. আবদুল মান্নান সোহেল, নবনির্বাচিত পরিচালক মো. এম. মহিউদ্দিন চৌধুরী, তাজমীম মোস্তফা চৌধুরী, সাকিফ আহমেদ সালাম, শাহজাদা মো. ফৌজুল আলেফ খান, ব্যবসায়ী নেতা তাহের সোবহান, রিহ্যাব পরিচালক ও রিজিওনাল কমিটির কো-চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. দিদারুল হক চৌধুরী, উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবিদা মোস্তফা ও সহ-সভাপতি ডাঃ মুনাল মাহবুব, চট্টগ্রাম জেলা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি সালেহ আহমেদ সুলেমান, চট্টগ্রাম ফ্রেশ ফ্রুটস ভেজিট্যাবলস এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহবুব রানা, বাগদাদ গ্রুপের মোহাম্মদ আজাদ খানসহ বিভিন্ন সেক্টরের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ইউকে প্রবাসী বাংলাদেশীরা উভয় দেশের অর্থনীতিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে এবং সে দেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উন্নয়নে কাজ করছে। তিনি প্রতিনিধিদলকে বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। চেম্বার সভাপতি উভয় দেশের প্রাইভেট সেক্টরের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি, বাণিজ্য সফর বিনিময়, চট্টগ্রাম বন্দরসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নে সহায়তার উপর গুরুত্বারোপ করেন। এছাড়া বাংলাদেশের অর্জিত সমুদ্রসীমায় অর্থনৈতিক সুফল লাভে সহযোগিতা প্রত্যাশা করে ব্রেক্সিট পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণ এবং রপ্তানিযোগ্য দক্ষ মানবসম্পদ তৈরীতে যৌথভাবে প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট স্থাপন করার অনুরোধ জানান। প্রতিনিধি দলনেতা বজলুর রশিদ বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগ বৃদ্ধি এই সফরের মূল লক্ষ্য। তিনি ব্যাংক, বিদ্যুৎ ও অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বৈদেশিক মুদ্রা প্রত্যাবাসন পদ্ধতি সহজীকরণের অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, বৃটেনে সরাসরি ব্যবসা-বাণিজ্যে জড়িত প্রায় ১ লক্ষ ৫০ হাজার বাংলাদেশী সে দেশের অর্থনীতিতে প্রায় ৫ বিলিয়ন পাউন্ড অবদান রাখছে। বাংলাদেশের দ্রুতগতির প্রবৃদ্ধি ও সরকারের ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির কারণে বাঙালি ব্রিটিশরা দেশে বিনিয়োগে আগ্রহী। বজলুর রশিদ যৌথ বিনিয়োগে শিল্পায়ন, ব্যবসা-বাণিজ্য ও সে দেশের উপযোগী করে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরীতে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের আগ্রহ প্রকাশ করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।