ব্যাটারিচালিত রিকশা ও অলিগলিতে অনিরাপদ পথযাত্রী

প্রতিমা দাশ

শুক্রবার , ২২ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:১২ পূর্বাহ্ণ
22

শহরের পাড়ায় মধ্যে যে সব অলিগলি এঁকেবেঁকে আছে তা নিতান্তই ছোট পরিসরের। একটি চার চাকার কার হয়তো কোনরকমে কষ্ট করে যায় তার পাশে দিয়ে একহাত পরিমাণ জায়গা থাকে। চলতি পথে ব্যস্ত মানুষজন দাঁড়িয়ে থাকে, রাস্তা খালি হলে আবার যাওয়া আসা করে কিন্তু এই কয়েক বছর যাবৎ দেখা যাচ্ছে কারের সাথে পাল্লা দিয়ে ব্যাটারি চালিত রিকশা খুব বেশি চলছে, এইসব রিকশায় আদৌ কোন লাইসেন্স আছে কি না ঠিক নেই তবে এতো স্পিড নিয়ে চলে যে কোন সময় বড় দুর্ঘটনায় চলতি মানুষের ক্ষতি হতে পারে। গতকাল দেওয়ানজী পুকুর এলাকায় একটি স্কুল পথযাত্রী বাচ্চা মেয়ে ব্যাটারি চালিত রিকশার আঘাতে তৎক্ষণাৎ পড়ে যায়, সবাই এসে মেয়েটিকে সাথে সাথে উদ্ধার করে, তার মাথায় সামান্য আঘাত ছাড়া অল্পের জন্য রক্ষা পায়, এর মাসখানেক আগে আমার ডান হাত ঘেঁষে আঘাত দিয়ে এতো জোরে রিকশা চলে গেছে যে আমাকে বাসায় এসে বরফের জল আর ব্যথানাশক ওষুধ খেতে হয়েছে। এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এখন প্রায়ই ঘটছে। চালকেরা তাদের ইচ্ছেমত রিকশা চালাবে আর সাধারণ মানুষজন ভীত হয়ে রাস্তা পারাপার করবে। শহরে মানুষদের ব্যস্ততার শেষ নেই, বাচ্চাদের স্কুল থেকে আনতে হয়, বাজার সদাই করতে হয়, কারো অফিস আছে আর এর মধ্যে পাড়ার গলিতে অনেক সাবধানতা অবলম্বন করে রাস্তা পার করে সাধারণ মানুষজন। এটা যেন নিত্যনৈমিত্তিক সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর থেকে উত্তরণের কোন গঠনমূলক পদক্ষেপও দেখা যাচ্ছে না। অতি শীঘ্রই চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা জরুরি হয়ে পড়েছে এখন। জনসাধারণের চলাচলের সুবিধার্থে গলির মধ্যে ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধ করে দেয়া উচিত।

x