বোলিংয়ে নতুনত্ব আনার চেষ্টা করছেন তাসকিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সোমবার , ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৫:৫৫ পূর্বাহ্ণ
66

দারুণ প্রতিভা নিয়ে বাংলাদেশ দলে যাত্রা শুরু হয়েছিল তাসকিন আহমেদের। কিন্তু একের পর এক ইনজুরি গত বছর খুব ভুগিয়েছে তাকে। বোলিংয়ে ছিলেন না খুব একটা ছন্দে। তবে সেই সময় পিছনে ফেলে নিজেকে অনেকটাই ফিরে পেয়েছেন এই তরুণ। সিলেট সিক্সার্স কোচ ওয়াকার ইউনুসের পরামর্শ মেনে বোলিংয়ে নতুনত্ব আনতে খাটছেন প্রাণপণে। বিপিএলের এবারের আসরে নিজের প্রথম ম্যাচে উইকেটশূন্য ছিলেন তাসকিন। চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে পরের ম্যাচে ২৮ রানে নেন ৪ উইকেট। ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে গত শনিবার ৩ উইকেট নেন ৩৮ রানে। নিজের বোলিংয়ে খুশি এই তরুণ জানান, প্রতি ম্যাচে আরও উন্নতির আশায় কঠোর পরিশ্রম করে চলেছেন তিনি। তাসকিন বলেন শেষ দুইটা ম্যাচ ভালো হয়েছে। এখনও অনেকগুলো ম্যাচ বাকি আছে। প্রত্যেকটা ম্যাচে ভুল থেকে শেখার চেষ্টা করছি। তবে মোটামুটি ভালোই হচ্ছে সবকিছু।
জাতীয় দলের বাইরে থাকা তাসকিন বোলিংয়ে নতুনত্ব এনে আবার খেলতে চান দেশের হয়ে। এই পেসার বলেন সত্যি কথা বলতে কী সব সময় বিশ্বাস করতাম, এবং করি। জাতীয় দলে খেলার যোগ্যতা রাখি আমি। ২০১৮ সালটা ইনজুরি আর বাজে ফর্ম মিলিয়ে একটু খারাপ কেটেছে। তাই সে অবস্থা কাটিয়ে উঠতে কঠোর পরিশ্রম করছি। আর সামনেও করব। তাসকিন জানান ফিটনেস, ভ্যারিয়েশন অনেক কিছু নিয়ে কাজ করছি। চেষ্টা করছি বোলিংয়ে নতুনত্ব আনার জন্য। লাইন, লেংথ সব কিছু নিয়ে কাজ করছি। আমার বিশ্বাস, যদি সুস্থ থাকি এবং সবকিছু যদি সহায় থাকে আবার সুযোগ আসতে পারে। যদি সুযোগ আসে ভালো করার চেষ্টা করব।
পাকিস্তানের কিংবদন্তি পেসার ওয়াকারের সঙ্গ দারুণ উপভোগ করছেন তাসকিন। কোচের কাছ থেকে শিখে নিচ্ছেন ফাস্ট বোলিংয়ের নানা কৌশল। তাসকিন বলেন আমরা স্থানীয় বোলাররা সব সময় উনার সঙ্গে কথা বলে শেখার চেষ্টা করছি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যেন অনুমেয় বোলিং না হয়ে যায় সেদিকে উনি খুব জোর দেন। শুধু জোরে না বা শুধু ধীরে না, দুইটার মিশেলে সঠিক লাইন-লেংথে স্পট বোলিং নিয়ে উনি কাজ করছেন। আমাদের অনেক অনুপ্রাণিত করছেন উনি।
তিনি বলেন আমাদের বিশ্বাস করানোর চেষ্টা করেন যে, আমরা ভালো করতে পারব। এটা সম্ভব। আমাদের সেই সামর্থ্য আছে। উনি অনেক আত্মবিশ্বাস দেওয়ার চেষ্টা করছেন। আশা করি, আমরা বোলিং ইউনিট উনার কাছ থেকে সামনে অনেক কিছু শিখতে পারব। নিজে একজন পেসার হওয়ায় ওয়াকার খুব সহজেই ধরে ফেলতে পারেন পেসারদের ভুল। তাসকিন মনে করেন, একজন পেসার প্রধান কোচ হওয়ায় কিছুটা বাড়তি সুবিধা পাচ্ছেন তারা।
কোনো সন্দেহ নেই, উনি একজন কিংবদন্তি বোলার। অনেক ধরনের ক্রিকেট উনি খেলেছেন। অনেক বছর ক্রিকেট খেলেছেন। আমরা ম্যাচে কোনো ভুল করলে উনি সেটা খুব সহজে ধরে ফেলতে পারেন। উনি আমাদের বলেন, এই ভুলটা এই কারণে হয়েছে। আমরা খেলোয়াড়রা এই ভুলগুলো নিয়ে সতর্ক থাকি। সেগুলো নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করি। সব মিলিয়ে উনি অনেক সাপোর্ট করছেন। এখন আমাদের লক্‌্যষ উনার কাছ থেকে যা শিখতে পারছি সেটাকে কাজে লাগানো। সামনে এখনো অনেক পথ পাড়ি দেওয়ার রয়েছে বলে জানান তাসকিন। গত একটা বছর লড়াই করেছি ইনজুরির সাথে। যেটুকু সময় সুস্থ ছিলাম সে সময় ফিরে পাইনি নিজের সেরা ছন্দটা। ফলে বারবার আশাহত হতে হয়েছে। তবে এবার যেন সঠিক রিদমটা ফিরে পাচ্ছি। এখন তাই আশায় বুক বধাতে চাই। যাতে সামনের সময়টাতে দলের হয়ে ভাল কিছু করতে পারি। তিনি বলেন জাতীয় দলে ফেরাপর স্মপ্ন এখনো দেখছি। আশা করছি বিপিএলে ভাল কিছু করে ফিরতে পারব জাতীয় দলে।

x