বৃষ্টি বাড়তে পারে ১০ মে থেকে

আজাদী প্রতিবেদন

মঙ্গলবার , ৮ মে, ২০১৮ at ৩:২৭ পূর্বাহ্ণ
305

কখনো রোদ, কখনো বৃষ্টি, সাথে ঝড়ো হাওয়া আর বজ্রপাত। এ মৌসুমটা কালবৈশাখীর। এমন আবহাওয়া পরিস্থিতি গতকালও নগরীসহ চট্টগ্রামের বিভিন্ন অঞ্চলে বিদ্যমান ছিল। যা বৈশাখের শুরু থেকেই বাড়তে থাকে। আর এটা অব্যাহত থাকবে বর্ষার আগ পর্যন্ত। তবে সারাদেশে আগামী ১০ মে থেকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে থাকবে বলে জানায় আবহাওয়া অফিস।

এ ব্যাপারে আবহাওয়াবিদ শেখ ফরিদ আহমদ আজাদীকে বলেন, মৌসুমটা গ্রীষ্মকাল। এ মৌসুমে সাধারণত কালবৈশাখী ঝড় হয়ে থাকে। এ মৌসুমে দুইতিনদিন রোদের দেখা মিলবে, এরপর বৃষ্টিপাতের সাথে কালবৈশাখী ঝড় হবে। এভাবেই থেমে থেমে ঝড়, রোদ ও বৃষ্টির দেখা দিবে। এটার পর আসছে বর্ষাকাল।

শেখ ফরিদ আহমদ আজাদীকে আরও বলেন, ক’দিন ধরেই কালবৈশাখী ঝড়ের সাথে সাথে থেমে থেমে বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এই প্রবণতা আরও দুইতিনদিন অব্যহত থাকবে। এরপর থেকে কিছুটা কমতে শুরু করবে। তবে ১০ মে থেকে সারাদেশে বৃষ্টি, কালবৈশাখী ঝড় ও বিদ্যুৎ চমকানোসহ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে।

এদিকে গতকালও চট্টগ্রামে দুই দফা বৃষ্টিপাত হয়েছে। ভোররাতে এক দফা বৃষ্টিপাতের পর সারাদিন রৌদ্রোজ্জ্বল ও শুষ্কতা বিরাজ করছিল। তবে ফাঁকে ফাঁকে আংশিক মেঘলা রূপ ধারণ করে এবং শেষ বিকালে বৃষ্টিপাতের দেখা মেলে। সর্বশেষ খবরে থেমে থেমে এ বৃষ্টিপাত সন্ধ্যা পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। রাতেও বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা ছিল। গতকাল ঝড়ের সাথে বাতাসের গতিবেগ ছিল ২৯ কি.মি.। দিনের কিছু সময় আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকলেও বেশির ভাগ সময়ই রৌদ্রোজ্জ্বল পরিবেশ ছিল। গতকাল সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৪০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ শেখ ফরিদ আহমেদ।

এ ধরনের আবহাওয়া পরিস্থিতি দীর্ঘদিন গড়াবে : আবহাওয়া পূর্বাভাসের তথ্যে জানা যায়, আজ মঙ্গলবার আংশিক রৌদ্রোজ্জ্বল থাকার পাশাপাশি আকাশ প্রধানত মেঘাচ্ছন্ন থাকবে। তবে এ সময় তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে। যা স্বাভাবিক তাপমাত্রার তুলনায় ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকতে পারে। কোথাও কোথাও বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় বাতাসের গতিবেগ সর্বনিম্ন ১৩ কি.মি. থেকে ১৮ কি.মি. বেগে প্রবাহিত হতে পারে যা সর্বোচ্চ ২৮ কি.মি. পর্যন্ত বাড়তে পারে। পরদিন বুধবার দিনের আকাশ অধিকাংশ সময়েই রৌদ্রোজ্জ্বল থাকবে। তবে রাতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার দিনের অধিকাংশ সময়েই রৌদ্রোজ্জ্বল থাকার পাশাপাশি আকাশ আংশিক মেঘাচ্ছন্ন থাকবে। এ সময় দিনের তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বাড়তে পারে। তবে ওইদিন রাতে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা কথা বলা হয়েছে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে। সেই সাথে বজ্রপাতের সম্ভাবনাও রয়েছে। শুক্রবার দিনে ও রাতে বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা বলেছে আবহাওয়ার পূর্বাভাস। সেই সাথে বজ্রপাতও থাকবে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসের চলতি মাসের আরও তথ্যে দেখা গেছে, চলতি মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত দুয়েকটি ঘটনা ছাড়া বেশিরভাগই টানা বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দিনে একবারই এ বৃষ্টিপাত হওয়ার কথা উল্লেখ আছে। এছাড়া আগামী জুনে পুরো মাস জুড়েই দিনে কয়েকবার বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সাধারণত গ্রীষ্মকালে সূর্যের প্রচণ্ড তাপে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভূমি, শুকিয়ে যায় পানি, নাব্যতা হারায় নদী, মাটিতে দেখা দেয় ফাটল। আর এ মৌসুমে শেষদিকে ধেয়ে আসে কালবৈশাখী ঝড়। এ সময় গাছে গাছে দেখা দেয় আম, কাঁঠাল, লিচুসহ বিভিন্ন মৌসুমী ফল। এরপরেই বর্ষাকালের প্রচণ্ড বৃষ্টিপাতে গ্রীষ্মকালীন সব তপ্ততা মিটিয়ে দেয়। তবে আবহাওয়ার বৈচিত্র্যের কিছুটা পরিবর্তনের কারণে ছয় ঋতুর দেশের এ ধারাও বদলে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করছেন আবহাওয়াবিদরা।

x