বিনোদনপ্রেমীদের ভিড় বাড়ছে গিরিছায়ায়

মীর আসলাম, রাউজান

বৃহস্পতিবার , ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ১০:৫১ পূর্বাহ্ণ

শীত আসার সাথে সাথে বিনোদন প্রেমীদের জনসমাগম বেড়েছে রাউজানের গিরিছায়ায়। সকাল বিকাল এখানে দেখা যাচ্ছে দল বেঁধে আসা নারী-পুরুষ শিশুদের ভিড়। চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি সড়কের রাউজানের সংযোগস্থলে রাউজান রাবার বাগানের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের মাঝে প্রতিষ্ঠিত গিরিছায়া এ অঞ্চলের একমাত্র বিনোদন কেন্দ্র। গত প্রায় চার বছর আগে রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় রাঙ্গামাটি সড়ক বাঁকে পাহাড়-সমতলের মিলন ক্ষেত্রে এই বিনোদন কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠা করেন পৌরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর জমির উদ্দিন পারভেজ। প্রথম বছর এখানে ছোট পরিসরে শুরু করা হলেও এখানে প্রতিষ্ঠিত গিরিছায়া রেস্তোঁরাটি এই সড়ক পথে যাতাযাতকারী দেশি বিদেশি পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এই পথে পর্যটকদের অনেকেই যাত্রা বিরতি দিয়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য উপভোগের পাশাপাশি রেস্তোরাঁয় খাওয়া দাওয়া সারেন। এভাবে পর্যটকদের আনাগোনায় প্রতিবছর এই প্রতিষ্ঠানটির গুরুত্ব বাড়তে থাকে। এই বিবেচনায় ২০১৭ সাল থেকে গিরীছায়ার কলরব বাড়ানো হয় বড় পরিসরে। পর্যটকদের বিনোদনের জন্য বিশাল এলাকা জুড়ে রাখা হয়েছে চিড়িয়াখানা। শিশুদের বিনোদনের জন্য আছে বিভিন্ন রকম রাইড। এখানে পাহাড় টিলার মধ্যে থাকা সারি সারি রাবার বাগানের ভিতর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগে দেশ বিদেশী পর্যটকদের বেড়ানোর সময় সহায়তা করতে রয়েছে গিরীছায়ার শিক্ষিত যুবকরা। দুদিন আগে এই বিনোদন কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে দেখা গেছে গিরিছাড়া এলাকাটি লোকে লোকারণ্য। নারী-পুরুষের সাথে শিশুদের ছুটে বেড়ানোর দৃশ্য। বেশির ভাগ নারী শিশুর কৌতুহল ছিল বিভিন্ন শ্রেণি বানর হনুমানদের লাফালাফি ও দুষ্টামি নিয়ে। দেশী-বিদেশি পর্যটকদের সৌন্দর্য উপভোগে সহয়তাদানকারী যুবক মোহাম্মদ অসিফ বলেছেন , শুধু শীতকাল নয় প্রতি মৌসুমে গিরিছায়ায় নামেন রাঙ্গামাটি ভ্রমণকারী দেশি-বিদেশি অনেক পর্যটক। তারা এখানে যাত্রা বিরতি দিয়ে রেস্তোরাঁয় বসে কিছুক্ষণ সময় কাটান।
রাউজান পৌরসভার প্যানেল মেয়র ওই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর গিরিছায়ার প্রতিষ্ঠাতা জমির উদ্দিন পারভেজ বলেছেন, রাঙ্গামাটি যাওয়ার পথে তার এই বিনোদন কেন্দ্রে যাত্রা বিরতি করেছিলেন বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট। তিনি এখানে দাঁড়িয়ে উপভোগ করেন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। রাঙ্গামাটি যাওয়া আসার পথে এখানে প্রতিনিয়ত যাত্রা বিরতি করেন করে দেশের শীর্ষস্থানীয় অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, প্রভাবশালী মন্ত্রী, সচিব, সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সামরিক বেসামরিক কর্মকর্তাগণ। অনেকেই আসেন সপরিবারে।
এটি এখন এই অঞ্চলের গুরুত্বপর্ণ ও আকর্ষণীয় প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। শীতকালীন বনভোজনে চট্টগ্রামের অনেক মানুষ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গত দুবছর থেকে গিরিছাড়া এলাকাকে বেছে নিচ্ছে। এখানে শিশুরা এসে চিড়িয়াখানার জীবজন্তু, পাখি দেখছে। রাবার বাগানের ফাঁকে ফাঁকে ঘুরে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করছে।

x