বিডিআর বিদ্রোহ মামলায় হাইকোর্টের রায় আজ

রবিবার , ২৬ নভেম্বর, ২০১৭ at ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ
109

বিডিআর বিদ্রোহের সময় পিলখানায় হত্যাকাণ্ডের মামলার আপিলের রায়কে কেন্দ্র করে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কারাগারগুলোতে। পুলিশের রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, রায় ঘিরে সতর্ক অবস্থানে থাকবে পুলিশ। আলোচিত এই মামলার ৮৫০ আসামির মধ্যে ১৫২ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেয় বিচারিক আদালত। ১৬১ আসামিকে যাবজ্জীবন এবং ২৫৬ আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। আসামির সংখ্যার দিক দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় মামলা এটি। মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন এবং সাজা বাতিলে এই আসামিদের আপিলের শুনানি শেষে আজ রোববার রায় দিতে যাচ্ছে হাই কোর্ট। খবর বিডিনিউজের।

আট বছর আগে ২০০৯ সালে তত্‌কালীন বিডিআর সদর দপ্তর পিলখানায় ৫৭ জন সেনাকর্মকর্তাসহ ৭৪ জন শিকার হয়েছিলেন নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের। বিডিআর জওয়ানদের হাতে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছিলো। বিচারপতি মো. শওকত হোসেনের সভাপতিত্বে বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকী ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করবেন।

আসামিদের বিভিন্ন জন বিভিন্ন কারাগারে থাকায় এই রায়ের আগে সংশ্লিষ্ট কারাগারগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে কারা কর্মকর্তারা জানান। পুলিশ বলছে, কারাগারগুলোর চার দিকে দৃশ্যমান ও সাদা পোশাকে পাহারা থাকবে, যাতে কেউ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা বা নাশকতা চালাতে না পারে কেউ। কারা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আসামিদের মধ্যে কিছু আছে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার, গাজীপুরের কাশিমপুরের কেন্দ্রীয় কারাগার ১ এ আছে ২০ জন, কাশিমপুরের কেন্দ্রীয় কারাগার২ এ আছে ৩ শতাধিক জন এবং কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগারে রয়েছেন একশ জনের মতো।

x