বিজিএমইএর সেমিনার ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমানোর দাবি

আজাদী প্রতিবেদন

মঙ্গলবার , ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ at ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ
18

পোশাক শিল্পের আর্থিক মন্দাবস্থা কাটাতে সিএমের (কাটিং এন্ড মেকিং) ওপর ডলার প্রতি ১০৫ থেকে ১১০ টাকা দিতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ চট্টগ্রাম অঞ্চলের নেতারা। গতকাল সন্ধ্যায় বিজিএমইএ সেমিনার কক্ষে সর্বস্তরের পোশাক মালিকদের সাথে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এ দাবি জানানো হয়। মতবিনিময় সভায় বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম বলেন, পোশাক ক্রেতাদের জোট অ্যাকর্ড ও অ্যালায়েন্সে শর্ত অনুযায়ী কারখানা সংস্কার করতে না পারার কারণে অনেক কারখানা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছন মালিকরা। এছাড়া গত এক বছরের মধ্যে সব মিলিয়ে পোশাক কারখানার পরিচালন ব্যয় বেড়েছে ৪২ শতাংশ। অন্যদিকে কমেছে সিএম। এছাড়া ব্যাংকগুলোতে উচ্চ হারে সুদও পোশাক কারখানার উন্নতিতে বড় বাধা। প্রধানমন্ত্রী সিঙ্গেল ডিজিট ৯ শতাংশ হারের ঋণের সুদের কথা বলেছে ঠিকই কিন্তু এখনও ক্ষেত্র বিশেষে বিভিন্ন ব্যাংকে ১৪-১৫ শতাংশ সুদ নেয়া হচ্ছে। বিদেশী বায়াররা (ক্রেতা) চট্টগ্রামেরও প্রতিও কেন জানি বিমুখ। হয়তো এটি আমাদের সক্ষমতার সমস্যা। ঢাকার একটি কারখানা একটি পোশাক যে খরচে তৈরি করতে পারে সেটি আমরা কোনোভাবেই করতে পারছি না। এই জায়গায় আমাদের উন্নতি করতে হবে। এছাড়া আমরা নতুন কোনো মার্কেটও সৃৃষ্টি করতে পারছি না। নতুন মার্কেট সৃষ্টিতে আমাদের মনোযোগ দিতে হবে। এখন আমাদের মার্কেট চলে যাচ্ছে ভিয়েতনাম, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানে। সরকারের কাছে আমাদের দাবি-পোশাকের সিএম এর ওপর যেনো গার্মেন্টস মালিকদের ডলার প্রতি ১০৫-১১০ টাকা দেয়া হয়। সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ’র সাবেক প্রথম সহ-সভাপতি খলিলুর রহমান, সাহাবউদ্দিন আহমদ, এরশাদ উল্লাহ, নাসির উদ্দিন চৌধুরী, এসএম আবু তৈয়ব, বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি এএম চৌধুরী সেলিম, পরিচালক অঞ্জন শেখর দাশ, এএম মাহবুব চৌধুরী, এনামুল আজিজ চৌধুরী, মোহাম্মদ আতিক, খন্দকার বেলায়েত হোসেন, সাবেক সহ-সভাপতি মোহাম্মদ ফেরদৌস, হাবিব গ্রুপের ইয়াাসিন আলী, প্যাসিফিক জিন্সের নাসির উদ্দিন ও সৈয়দ মো. তানভীর, বিএলপি ফ্যাশনের মহিউদ্দিন এফসিএ ও মারস ফ্যাশনের মো. মহসীনসহ প্রমুখ।

x