বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের আওতায় ৮ লাখ রোহিঙ্গা

রফিকুল ইসলাম, উখিয়া

মঙ্গলবার , ৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৪:৫৯ পূর্বাহ্ণ
52

আট লাখেরও বেশি রোহিঙ্গার বায়োমেট্রিক নিবন্ধন সম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা-ইউএনএইচসিআর যৌথভাবে এ নিবন্ধন সম্পন্ন করেছে বলে জানা যায়। ইউএনএইচসিআর’র এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে এটি রোহিঙ্গাদের পরিচয় ব্যবস্থাপনা, ডকুমেন্টেশন, সুরক্ষা, সহায়তার বিধান, পরিসংখ্যান ও সমাধানে ব্যবহারের জন্য একটি একীভূত তথ্যভাণ্ডার (ডাটাবেস) তৈরিতে সাহায্য করবে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চোখের স্ক্যান, আঙুলের ছাপ ও স্বতন্ত্র পরিচয় নিশ্চিত করার জন্য ছবিসহ বিভিন্ন বায়োমেট্রিক তথ্য ব্যবহার করে ১২ বছরের বেশি বয়সী সব রোহিঙ্গাকে পরিচয় পত্র দেওয়া হবে। ইউএনএইচসিআর-এর ডেপুটি হাইকমিশনার কেলি ক্লেমেন্টস সমপ্রতি বাংলাদেশ সফরে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তায় মানবিক কর্মকান্ডের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি পর্যেবেক্ষণ করেছেন। এর সাথে স্থানীয় বাংলাদেশী জনগণের ওপর রোহিঙ্গা সঙ্কটের প্রভাব ও মানবিক কর্মকান্ডের চ্যালেঞ্জগুলো সম্পর্কে তাকে অবহিত করা হয়। তিনি নয়াপাড়া ও কুতুপালং ক্যাম্পে প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুতি, স্বেচ্ছাসেবকদের কাজ এবং বাংলাদেশ সরকারের সাথে ইউএনএইচসিআরের যৌথ নিবন্ধন কার্যক্রমের ব্যাপক অগ্রগতি লক্ষ্য করেন।
জানা যায়, রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশ সরকারের সাথে ইউএনএইচসিআরের যৌথ নিবন্ধন প্রক্রিয়া সমাপ্তের পথে। ইতিমধ্যে আট লাখের বেশি রোহিঙ্গার বায়োমেট্রিক রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে। কুতুপালং রেজিস্ট্রেশন সেন্টার পরিদর্শনের পর কেলি ক্লেমেন্টস বলেন, শরণার্থীদের সুরক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি একটি বিরাট অর্জন। এর মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা ও মানবিক সাহায্য যথাযথভাবে নিশ্চিত করা যাবে। শরণার্থীদের অনেকের জন্যই এটি জীবনে পাওয়া প্রথম পরিচয়পত্র। এ সময় রোহিঙ্গাদের জন্য চলমান মানবিক কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখতে আন্তর্জাতিক সমপ্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান কেলি ক্লেমেন্টস।

x