বাংলা ভাষাকে সমৃদ্ধ করেছে লোকজ সাহিত্য

বইমেলায় কবি মুহাম্মদ নুরুল হুদা

বৃহস্পতিবার , ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ at ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ
19

কবি মুহাম্মদ নুরুল হুদা বলেছেন, বাংলা ভাষা সমৃদ্ধিতে লোক সংস্কৃতির অবদান অনস্বীকার্য। বাংলা ভাষার হাজার বছরের ঐতিহ্যে লোকজ সাহিত্য ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে। বিশেষ করে অঞ্চলে অঞ্চলের ভাষাসমূহ আমাদের বাংলা ভাষার নানান তথ্য ও উপাত্ত দিয়ে আমাদেরকে সহায়তা করেছে। বাংলা ভাষায় লোকজ সাহিত্যে পুঁথি বিশারদ আব্দুল করিম সাহিত্য বিশারদের অবদান আমাদের বাংলা সাহিত্যের ভাণ্ডারকে উজ্জ্বলতর করেছে। বিশেষ করে হারিয়ে যাওয়া ভাষাসমূহ। দুর্লভ পুঁথিসমূহের মাধ্যমে আমাদের লোকজ সাহিত্যের ব্যাপক সংরক্ষণ ও সমৃদ্ধ সৃষ্টিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। মাতৃভাষা বাংলাকে আরো বেশি সমৃদ্ধ করতে আমাদের চিরকালীন ঐতিহ্য লোকজ সাহিত্যের প্রতি আরো বেশি চর্চা এবং সংরক্ষণ জরুরি। বাংলা সাহিত্যের নানা শাখা প্রশাখায় লোকজ ভাষা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। যা আমাদের বাংলা ভাষার উত্তরণ ও সমৃদ্ধিতে অবদান রেখে চলেছে।
চসিক আয়োজিত মুজিববর্ষে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত অমর একুশে বইমেলা মঞ্চে গতকাল বুধবার বাংলা সাহিত্যে লোকজ ভাষা শীর্ষক সভায় তিনি প্রধান বক্তার বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া। স্বাগত বক্তব্য দেন, মুক্তিযোদ্ধা ফাহিম উদ্দিন। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বোধনের সভাপতি আব্দুল হালিম দোভাষ। দ্বিতীয় পর্বে সংগীত পরিবেশন করেন কল্যাণী ঘোষ, গীতা আচার্য, স্নিগ্ধা দাশগুপ্তা, অনামিকা মনি, দলীয় নৃত্য পরিবেশন করেন সুরাঙ্গ বিদ্যাপিঠ, দলীয় সংগীত পরিবেশন করেন সিটি কর্পোরেশন পাঠানটুলি খান সাহেব বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিল্পীরা, একক নৃত্য পরিবেশন করেন সম্প্রীতি বড়ুয়া, অন্তরা, প্রাচী চৌধুরী। ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া বলেন, মাতৃভাষাকে রক্ষার জন্য আমাদেরকে শুদ্ধ ও সঠিকভাবে বাংলা ভাষা চর্চায় আরো মনোযোগী হতে হবে। বিশেষ করে আঞ্চলিক ভাষার সঠিক ও শুদ্ধ ব্যবহার এবং হারিয়ে যাওয়া এসমস্ত ভাষাগুলোকে একাডেমিকভাবে সংরক্ষণ জরুরি। আজ বিকেল ৫টায় বইমেলা মঞ্চে বাংলা সাহিত্যে প্রকৃতি শীর্ষক সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান আলোচক থাকবেন খ্যাতিমান কথাসাহিত্যিক বিপ্রদাশ বড়ুয়া। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।