বাংলাদেশের সাথে সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করবে জাপান : রাষ্ট্রদূত

নগরীতে প্রথমবারের মতো ‘জাপান ফেস্ট’

আজাদী প্রতিবেদন

রবিবার , ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৬:০৩ পূর্বাহ্ণ

নগরীতে প্রথমবারের মতো জাপান দূতাবাস আয়োজিত ‘জাপান ফেস্টে’ বাংলাদেশের সাথে সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। তিন বছর ব্যাপী এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে বাংলাদেশস্থ জাপানী দূতাবাস। সামনের দিনে বাংলাদেশের সাথে জাপানের সম্পর্ক আরো নতুন উচ্চতায় যাবে বলেও ফেস্টে উল্লেখ করেন জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি। গতকাল শনিবার বিকেলে জাপান দূতাবাসের আয়োজনে জাপান ফেস্ট অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো জানান, আগামী ৩ বছর আমরা বিশেষ বার্ষিকী উদযাপন করবো। ২০২০ বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী। ২০২১ বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ তম বার্ষিকী এবং ২০২২ জাপান-বাংলাদেশ সম্পর্কের ৫০ তম বার্ষিকী। এসব আয়োজনের মাধ্যমে বাংলাদেশ এবং জাপানের মধ্যকার সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। এ উপলক্ষে দেয়া বক্তব্যে তিনি জানান, জাপান এবং চট্টগ্রাম সামনের বছরগুলোতে আরো বেশি কাছাকাছি আসবে। বাংলাদেশের সাথে আগামীতে বিশেষ করে শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদারে কাজ করছে তারা। ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৬০ জন তরুণ পেশাদার ব্যক্তিকে প্রশিক্ষণের জন্য বৃত্তি দিয়েছে জাপান সরকার। তিনি তথ্য প্রকাশ করে বলেন, ১৯৭২ সাল থেকে জাপান ও বাংলাদেশ অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার করেছে। বেশ কয়েকজন অধ্যাপক ও প্রভাষক জাপান থেকে পড়াশুনা করে এসে চট্টগ্রামের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান করছেন। এসময় তিনি বাংলাদেশ ইকেবানা এসোসিয়েশন ও জাপানিগ সোসাইটি ইন চট্টগ্রামকে তাদের আন্তরিক সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান। একইসাথে সফল অনুষ্ঠান আয়োজনে এশিয়ান ইউনিভাসির্টি অফ উইমেনের স্বেচ্ছাসেবীদের।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি বলেন, জাপান বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত বন্ধু। বাংলাদেশের উন্নয়নে জাপানের ভূমিকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমরা চাই সামনেও জাপানের এই সহযোগিতার হাত উন্মুক্ত থাকবে। এছাড়া জাপানের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যও আমাদের মতোই অনেক সমৃদ্ধ। পারস্পরিক দেয়া-নেয়ার মধ্য দিয়ে আমরা পরস্পরকে আরও জানবো।
তিনি আরো বলেন, এ ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্যদিয়ে জাপান বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরো জোরদার হবে। এ সম্পর্কের হাত ধরে আমরা এগিয়ে যাবো আরো অনেকদূর।
জাপানি রাষ্ট্রদূত তার বক্তব্যে বলেন, জাপান ও চট্টগ্রামের মধ্যকার জনগণ এবং শিক্ষার ক্ষেত্রে প্রাণবন্ত সম্পর্ক বিদ্যমান দীর্ঘদিন ধরে। আমি আশা করি এ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো গভীর হবে।
অনুষ্ঠানে সাতজন ইকেবানা বিশেষজ্ঞ জাপানি ফুলসজ্জা প্রদর্শন করেন। ফেস্টে জাপানি শিল্পী যুগল বাজনা বিট জে পপ সংগীত ও বাংলা গান পরিবেশন করে। জাপানিদের কণ্ঠে বাংলা গান শুনে উপস্থিত দর্শক শ্রোতার মধ্যে বিপুল উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। চট্টগ্রাম জাপানি এসোসিয়েশন, এশিয়ান উইমেন ইউনিভার্সিটি জাপানি সার্কেল ক্লাব, নিপ্পন একাডেমি ও বাংলাদেশ ইকেবানা এসোসিয়েশন এই উৎসব আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামে জাপানের অনরারি কনসাল মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম ও দৈনিক আজাদীর সিনিয়র সাংবাদিক নাট্যজন প্রদীপ দেওয়ানজীসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

x