‘বহদ্দারহাট পুলিশ বিটের সংলগ্ন জায়গায় মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্মৃতি স্তম্ভ ও ‘বঙ্গবন্ধু চত্বর’ নির্মাণ প্রসঙ্গে’

বৃহস্পতিবার , ৪ এপ্রিল, ২০১৯ at ৭:২০ পূর্বাহ্ণ
74

আমরা বহদ্দারহাট মোড় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৪, ৫, ৬, ৭ ও ৮নং ওয়ার্ডের অধিবাসী তথা চট্টগ্রামের প্রাণকেন্দ্র (জিরো) পয়েন্ট হিসেবে বিবেচিত হই। বহদ্দারহাট ফ্লাই ওভার নির্মাণের পূর্বে বহদ্দারহাট মোড়ে প্রায় ৫০ ফুট বিশিষ্ট সুদৃশ্য বাগানসহ দেওয়াল ঘড়ি নির্মিত ছিল। বর্তমানে ফ্লাইওভার বর্ধিত এবং সম্প্রসারণের কারণে তা ভেঙে ফেলা হয়েছে। আমাদের বর্তমানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম ও শাহাদাত বার্ষিকী, জাতীয় চার নেতা এবং অন্যান্য নেতাদের বিনম্র শ্রদ্ধায়, বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস, ভাষা দিবস, বুদ্ধিজীবী দিবসে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর শহীদদের স্মরণে বহদ্দারহাট চত্বরকে ‘বঙ্গবন্ধু চত্বর’ নাম দিয়ে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি স্মরণে নগর পরিকল্পনাবিদ, চৌকস স্থপতি ও প্রকৌশলীদের দ্বারা ৭১ ফুট বিশিষ্ট শহীদ বেদী ও স্তম্ভ নির্মাণ করা প্রয়োজন। কারণ উপরোক্ত দিবসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে, বিপ্লব উদ্যানে সবার পক্ষে যানজট ও রাত্রিকালীন গাড়ির সংকটের কারণে ফুল দেওয়া অনেক কষ্টকর হয়ে পড়ে। এলাকার সকল জনসাধারণের কথা বিবেচনা করে বহদ্দারহাট মোড়কে সৌন্দর্য বর্ধনে আপনার সাহায্য কামনা করছি। উল্লেখ্য যে, মানীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের সৌন্দর্য ও উন্নয়নের দায়িত্ব নিয়েছেন এবং তিনি আপনাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। আপনি চট্টলরত্ন হিসেবে সৌন্দর্যের প্রতিচ্ছবি স্বরূপ বহদ্দারহাট পুলিশ বিটের মোড়কে সাজিয়ে তুলবেন এই আশা ব্যক্ত করি।
অতএব, উপরোক্ত বিষয় সু-বিবেচনা করে বহদ্দারহাট পুলিশ বীট সংলগ্ন জায়গায় মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্মৃতি স্তম্ভ এবং বঙ্গবন্ধু চত্বর বিনির্মাণে আপনার সাহায্য ও সহযোগিতা একান্তভাবে কামনা করছি।
এলাকাবাসীর পক্ষে, দিদারুল আলম আকাশ, আইনজীবী (কর) ও কোম্পানি আইন উপদেষ্টা, সদস্য চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতি।

x