বই পড়ার জন্য চট্টগ্রামে ৫ হাজার শিক্ষার্থীকে পুরস্কার দিল বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র

শনিবার , ২ মার্চ, ২০১৯ at ৭:১৯ পূর্বাহ্ণ
152

নগরীর মিউনিসিপ্যাল মডেল হাই স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গণে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র পরিচালিত দেশভিত্তিক উৎকর্ষ কার্যক্রমের আওতায় ২০১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রছাত্রীদের দিনব্যাপী দু’পর্বের বর্ণাঢ্য পুরস্কার বিতরণ উৎসব গতকাল শুক্রবার সকালে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাসির উদ্দীন ও বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ নিয়ে উৎসবমূখর পরিবেশে ফুলের মালা কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। বর্ণাঢ্য এ উৎসবে চট্টগ্রাম মহানগরীর ৮৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫ হাজার ২১০ জন শিক্ষার্থীকে গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় পুরষ্কার প্রদান করে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র। বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র আয়োজিত চট্টগ্রাম মহানগরীতে দিনব্যাপী পুরস্কার বিতরণ উৎসবের দু’পর্বে ৮৮টি স্কুলের পুরস্কার বিজয়ী মোট ৫২১০ জন শিক্ষার্থীকে স্বাগত পুরস্কার, শুভেচ্ছা পুরস্কার, অভিনন্দন পুরস্কার ও সেরাপাঠক পুরস্কার এই চারটি ধাপে পুরস্কার প্রদান করা হয়। সকালে প্রথমপর্বে ৪৪টি স্কুলের ২৬০৬জন শিক্ষার্থীকে, দ্বিতীয়পর্বে ৪৪টি স্কুলের ২৬০৪ জনসহ মোট ৮৮টি স্কুলের ৫২১০জনকে পুরস্কার দেয়া হয়। লটারির মাধ্যমে প্রতি ১০জন সেরা পাঠক পুরস্কার বিজয়ীদের মধ্য থেকে ১জন করে মোট ৬জনকে ২০০০ টাকা সমমূল্যের বইয়ের বিশেষ পুরস্কার প্রদান করা হয়। এছাড়াও লটারির মাধ্যমে প্রতিপর্বে ২ জন করে মোট ৪ জন অভিভাবককে ২০০০ টাকা সমমূল্যের বইয়ের বিশেষ পুরস্কার প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আ.জ.ম নাসির উদ্দীন, বিশিষ্ট শিশু-সাহিত্যিক আলী ইমাম, চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মিউনিসিপ্যাল মডেল হাই স্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ সাহেদুল কবির চৌধুরী, গ্রামীণফোনের চট্টগ্রাম অঞ্চলের রিজিওনাল হেড অব অপারেশনস ফিরোজ উদ্দিন, চট্টগ্রাম লেখক-সাহিত্যিকদের সংগঠন চট্টগ্রাম একাডেমির মহাপরিচালক অরুন শীল, চট্টগ্রাম মহানগরের সংগঠক ও অধ্যাপক আলেঙ আলীম এবং বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ উপস্থিত ছিলেন। বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ পুরস্কারপ্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, পৃথিবীতে দু’রকমের মানুষ রয়েছে- উচ্চতর মানুষ আর নিম্নতর মানুষ। আমরা উচ্চতর মানুষের আরেক নাম দিয়েছি আলোকিত মানুষ। সমবেত শিক্ষার্থীদের তিনি আলোকিত মানুষ হওয়ার জন্য বেশি বেশি জ্ঞান অর্জন করার পরামর্শ দেন।
গ্রামীণফোনের চট্টগ্রাম অঞ্চলের রিজিওনাল হেড অব অপারেশনস ফিরোজ উদ্দিন বলেন, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বইপড়া কার্যক্রমের সাথে গ্রামীণফোন যুক্ত থাকতে পেরে গর্বিত। তিনি আরো বলেন বই হচ্ছে জ্ঞানগর্ভ। ভালো এবং বেশি বেশি বই পড়তে হবে আর সে অনুযায়ী জীবন পরিচালনা করতে পারলে সফলতা নিশ্চিত। সে লক্ষ্যে সবার জন্যে চমৎকার সব বইয়ের একটি ই-লাইব্রেরি তৈরি করেছে গ্রামীণফোন এবং বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র যৌথ উদ্যোগে। আগ্রহী পাঠকগণ পছন্দের বই পড়তে পারবেন । খবর বিজ্ঞপ্তির।

x