ফুঁসছে পশ্চিমবঙ্গও

ব্যাপক বিক্ষোভ ও ভাঙচুর, ট্রেন স্টেশনে অগ্নিসংযোগ যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য-কানাডার ভ্রমণ সতর্কতা

রবিবার , ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৯:২২ পূর্বাহ্ণ

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে উত্তাল ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলোর পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গেও ব্যাপক বিক্ষোভ, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার মুর্শিদাবাদ, বেলডাঙ্গা, উলুবেড়িয়াসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় গাড়ি, বাস ভাংচুরের পাশাপাশি রেল স্টেশনে অগ্নিসংযোগের খবর দিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো। গতকাল শনিবারও রাজ্যটির বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ, রেল-সড়ক অবরোধ চলছে বলে জানিয়েছে আনন্দবাজার। বেশিরভাগ এলাকায় ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে আছে। বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে সরকারি বাস ভাংচুর ও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কয়েকটি স্টেশনে আগুনও ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রতিবাদকারীদের দমাতে কোনো কোনো এলাকায় পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়েছে। এদিকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট অস্থিরতায় ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলিতে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও ফ্রান্স। প্রয়োজন ছাড়া ওইসব এলাকায় না যেতে নাগরিকদের পরামর্শ দিয়েছে দেশ চারটি। ভারতে অবস্থানরত নাগরিকদের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা এবং গণমাধ্যমের খবর অনুসরণেরও পরামর্শ দিয়েছে তারা। যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তাদের আসাম ভ্রমণে স্থগিতাদেশ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। কানাডা এবং ফ্রান্সও উত্তরপূর্ব ভারতে ভ্রমণে নাগরিকদের অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএনআই।
এবার অফলাইনে আসাম ও মেঘালয় : এবার আসাম ও মেঘালয় রাজ্যে ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দিয়েছে ভারত। সদ্য পাস হওয়া নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিক্ষোভ চলছে দেশটির ওই দুই রাজ্যে। চলমান বিক্ষোভের মুখে শুক্রবার ওই দুই রাজ্যে ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে রাখার খবরটি জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট টেকক্রাঞ্চ। বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে আনতেই ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছে সাইটটি। এ বিষয়ে আসামের কর্মকর্তারা বলেছেন, ‘ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টুইটার এবং ইউটিউবের মতো সামাজিক মাধ্যমগুলোর সাহায্যে গুজব এবং আইন শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে এমন তথ্য, ছবি ও ভিডিও ছড়ানো হতে পারে।’ ওই দুই রাজ্যের মানুষ কবে নাগাদ ইন্টারনেট সংযোগ আবার ফিরে পেতে পারেন, সে বিষয়ে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। পুরো বিষয়টি নিয়ে টেকক্রাঞ্চ মন্তব্য করেছে, ‘পরস্পরের সঙ্গে সংযুক্ত থাকতে, খবর ও তথ্য পেতে সহযোগিতা করে এমন একটি মাধ্যম বন্ধ করে দেওয়ার নজির অনেক দেশেই দেখা গেছে, তবে ভারত সবার চেয়ে এগিয়ে।’[ এর আগে ভারত শাসিত কাশ্মিরে ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দিয়েছিল দেশটি। চার মাস পর এখনও ইন্টারনেট সংযোগের বাইরে রয়েছেন দেশটির ওই অঞ্চলের অধিবাসীরা। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইন্টারনেট বাজার হিসেবে পরিচিত ভারতে বর্তমানে সক্রিয় ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৬৫ কোটির বেশি।
‘ভারত বাঁচাও’ সমাবেশের ডাক কংগ্রেসের : বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল নিয়ে উত্তাল ভারতে আরও উত্তাপ ছড়াতে এবার ‘ভারত বাঁচাও’ সমাবেশের ডাক দিয়েছে কংগ্রেস। দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থা, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন, কৃষকদের দুর্দশা ও কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন ইস্যুতে এই সমাবেশের ডাক দিয়েছে দেশটির বিরোধী দল। গতকাল শনিবার রাজধানী দিল্লিতে এই সমাবেশে অংশ নেবেন সোনিয়া গান্ধী, মনমোহন সিং, রাহুল গান্ধীসহ দলের শীর্ষ নেতারা। কংগ্রেসের বিদেশের শাখাগুলোও বিশ্বজুড়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের মাধ্যমে ‘ভারত বাঁচাও’ সমাবেশে যোগ দেবে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল পাস হয়। পরে রাষ্ট্রপতি বিলটিতে সই করায় তা আইনে পরিণত হয়ে গেছে। খবর বিভিন্ন সংবাদ সংস্থার।

x