প্রেমের ফাঁদে প্রিয়া

মহেশখালী প্রতিনিধি

মঙ্গলবার , ২০ মার্চ, ২০১৮ at ৫:১৩ পূর্বাহ্ণ
228

চট্টগ্রামের এক গার্মেন্টস কর্মীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কুতুবদিয়ায় নিয়ে গিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে প্রেমিক। প্রেমিকার শরীরে চালানো হয়েছে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত। গত শনিবার রাত ১১টার দিকে কুতুবদিয়া বায়ু বিদ্যুৎ এলাকায় এঘটনা ঘটে। প্রতারণার শিকার ওই পোশাক কর্মীর নাম প্রিয়া মল্লিক (২৫)। সে চকরিয়া উপজেলার হারবাং স্টেশনের মল্লিক পাড়ার সাধন মল্লিকের কন্যা। অন্যদিকে প্রেমিকের নাম হাছান (৩৫)। তার বাড়ি বাঁশখালীর মৌলভী বাজার এলাকায়। এ ঘটনায় প্রিয়া মল্লিকের পিতা সাধন মল্লিক বাদী হয়ে হাছান ও অজ্ঞাত দুজনসহ ৩ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, প্রিয়া মল্লিক চট্টগ্রামের বহদ্দারহাট পিকো ফ্যাশন নামের গার্মেন্টস কারখানায় কর্মী হিসাবে কাজ করতো। হাছান কাজ করতো বহদ্দারহাটের একটি রেস্টুরেন্টে। দু’বছর পূর্বে তাদের পরিচয়। এরপর হাছানের বিয়ের প্রলোভনে দুইজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক শুরু হয়। প্রিয়া সনাতন ধর্মাবলম্বী হলেও হাছানকে বিশ্বাস করে বিয়ের আশায়। প্রিয়ার বেতন পর্যন্ত ভোগ করে আসছিল হাছান। পরে বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করলে ধর্মান্তরিত হওয়ার কথা বলে। এতেও রাজি ছিল প্রিয়া। পরে হাছান গোপনে চট্টগ্রাম ছেড়ে বাঁশখালী চলে গিয়ে সম্পর্ক ছিন্ন করে আত্মগোপনে থাকে। গত ১৬ মার্চ প্রিয়া হাছানের খোঁজে বাঁশখালীর মৌলভী বাজার এলাকায় গিয়ে দেখা করলে ভাড়া বাসায় রাখে। সেখানে হাসানের মা গিয়ে প্রিয়াকে হাসানের দুই সন্তান ও স্ত্রী রয়েছে বলে জানালে বাঁধে বিপত্তি। তার পরেও ছাড়তে রাজি না হওয়ায় এবার হাছান প্রিয়াকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করে। পরে গত ১৭ মার্চ হাছান তার অজ্ঞাত দুই বন্ধুসহ প্রিয়াকে কুতুবদিয়া উপজেলার আলী

আকবর ডেইল ইউনিয়নের তাবালের চর আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে নিয়ে যায়। রাতে বায়ুবিদ্যুৎ দেখার কথা বলে নির্জন এলাকায় নিয়ে প্রিয়াকে ৩ বন্ধু মিলে উপর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা চালায়। প্রিয়ার শোর চিৎকারে লোকজন আসার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় তিন বন্ধু। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয়রা প্রিয়াকে উদ্ধার করে কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। গতকাল সোমবার আশংকা জনক অবস্থায় ককসবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রিয়াকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তার মাথা ও মুখেসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত চিহ্ন রয়েছে। পুলিশের খরচে প্রিয়ার চিকিৎসা চলছে। তবে শঙ্কামুক্ত। আসামিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

x