পেকুয়ায় দুই ডাকাতদলের বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১

১২টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ২৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

চকরিয়া প্রতিনিধি

মঙ্গলবার , ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ at ২:৩৩ অপরাহ্ণ
121

কক্সবাজারের পেকুয়ায় পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও দুর্ধর্ষ ডাকাত
সর্দার মো. আলম ওরফে ডাকাত আলমের (৩১) গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে
পুলিশ।

অস্ত্র বিকিকিনির সময় ডাকাতদলের দুইপক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির
জের ধরে শুরু হওয়া বন্দুকযুদ্ধে ওই ডাকাত নিহত হন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুটি একনলা বন্দুক, ৯টি এলজি, টু টু বোরের ১টিসহ
১২টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ২৩ রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করেছে।

আজ মঙ্গলবার ভোররাতে উপজেলার টৈটং ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ফরেষ্ট অফিস সংলগ্ন গুঁদিকাটা পাহাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে গিয়ে ডাকাত সদস্যদের ছোঁড়া গুলিতে আহত হয়েছেন পুলিশের পাঁচজন সদস্য। তারা হলেন, চকরিয়া সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারি পুলিশ সুপার কাজী মো. মতিউল ইসলাম, পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মিজানুর রহমান, এএসআই মেজবাহ উদ্দিন ও মো. ইব্রাহিম এবং কনষ্টেবল সাইকুল ইসলাম।

নিহত ডাকাত মোহাম্মদ আলম উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বদিউদ্দিন পাড়ার
আবুল হোসেনের ছেলে।

তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, চাঁদাবাজি, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের ওপর নির্যাতন, সন্ত্রাসী কার্যকলাপসহ বিভিন্ন অপরাধের দায়ে ৭ মামলা রয়েছে।

পেকুয়া থানার ওসি মো. কামরুল আজম জানান, অস্ত্র বিকিকিনির সময় ডাকাতদলের দুইপক্ষের মধ্যে দরদাম নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে বন্দুকযুদ্ধে লিপ্ত হন তারা। এতে একপক্ষের ছোঁড়া গুলিতে বিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান আন্তঃজেলা ডাকাত সর্দার ও দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মোহাম্মদ আলম ওরফে ডাকাত আলম। এ সময় খবর পেয়ে পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ নিতে গিয়ে আহত হন পুলিশের ৫ জন সদস্য।

ওসি বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য
কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা এবং পুলিশ এসল্টসহ অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা রুজু করা হয়েছে। আহত পুলিশ সদস্যদের উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

x