পুলিশ ইন্সপেক্টরসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা

আইনজীবীর স্বাক্ষর-সিল জাল করার অভিযোগ

আজাদী প্রতিবেদন

বুধবার , ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ at ২:১৪ পূর্বাহ্ণ

শেখ মনছুর রহমান নামে এক আইনজীবীর স্বাক্ষর ও সিল জাল করার অভিযোগে পুলিশ ইন্সপেক্টর শামসুর রহমানসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আবু সালেম মোহাম্মদ নোমান এর আদালত শুনানি শেষে দায়ের করা মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহণ করতে কোতোয়ালী থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে মামলাটি তদন্ত করার জন্য সিআইডিকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এডভোকেট মনছুর চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সদস্য। তার লিন নম্বর ১৩২৫।
মামলার আরজিতে এ বিষয়ে বাদী অ্যাডভোকেট মনছুর রহমান জানান, দক্ষিণ খুলশী জামে মসজিদ নিয়ে বিরোধের ঘটনায় তিনটি দেওয়ানি মামলার বাদীপক্ষের হয়ে মামলা পরিচালনা করছি আমি। সেই মামলার সাক্ষী হিসেবে ইন্সপেক্টর শামসুর রহমান সাক্ষী দিতে আসেন। সেই সময় তার সঙ্গে পরিচয় হয়। এ পরিচয়ের সুত্র ধরে তিনি আইনজীবী এনেঙ ভবনে আমার চেম্বারে মাঝে মধ্যে নানা বিষয়ে আইনি পরামর্শ নিতে আসতেন। সম্প্রতি কয়েকটি মামলায় আমি আইনজীবী না হলেও আমার সিল ও সাক্ষর জাল করে মামলার তদবির করা হচ্ছে বলে আমি জানতে পারি। এরপর এসব জাল-জালিয়াতির সঙ্গে ইন্সপেক্টর শামসুর রহমানের নাম উঠে আসে। তিনি পুলিশ হলেও আদালতে বিভিন্ন মামলার আমমোক্তারনামা হয়ে তিনি নিজেই সেই মামলার তদবির করে আসছেন। বিষয়টি আইনজীবী সমিতিকে জানানোর পর সাধারণ সম্পাদক আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দেন। তার পরই এ জাল জালিয়াতি ও প্রতারণার মামলা দায়ের করি।
শুনানি শেষে আদালত কোতোয়ালী থানাকে এজাহার হিসেবে মামলাটি রেকর্ড এবং সিআইডিকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেন। মামলার অপর আসামিরা হলেন- মোহাম্মদ সেলিম, মশিউর রহমান বেগ ও মাহবুবুর রহমান।
তিনি আরো জানান, একজন পুলিশ কর্মকর্তার এ ধরনের জাল জালিয়াতির সাথে জড়িত থাকার বিশ্বাসযোগ্য তথ্য উপাত্ত আমি আদালতে বিচারকের সামনে উপস্থাপন করেছি। তনি আরো জানান, আমার সীল ও স্বাক্ষর জাল করে ইন্সপেক্টর বিভিন্ন মামলায় হাজিরা দিয়ে যাচ্ছিলেন। বিভিন্ন দেওয়ানি ও ফৌজদারি মামলায় দরখাস্ত এবং তদবিরও করছিলেন।

x