পুরুষদের লক্ষ্য যেখানে লজ্জা নিবারণের নারীদের সেখানে ফাইনালের

ইন্দোনেশিয়া এবং ভুটানে আজ মাঠে নামছে ফুটবল দল

নজরুল ইসলাম

বৃহস্পতিবার , ১৬ আগস্ট, ২০১৮ at ৮:৫৪ পূর্বাহ্ণ
178

আন্তর্জাতিক ফুটবলে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশের পুরুষ এবং নারী দল। আর সেখানে দু দলের লক্ষ্য দু রকম। নারীদের লক্ষ্য যেখানে সাফ অনূর্ধ্ব১৫ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করা সেখানে পুরুষদের লক্ষ্য কোন রকমে মান বাঁচানো। সাফ অনূর্ধ্ব১৫ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। আর সে শিরোপা ধরে রাখার পথে একেবারে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে শামসুননাহারমারিয়ারা। আজ টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে স্বাগতিক ভুটানকে হারাতে পারলেই আরো একবার ফাইনালে জায়গা করে নেবে বাংলাদেশের কিশোরীরা। আর সে লড়াইয়ে একেবারে ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে গোলাম রব্বানী ছোটনের শীষ্যরা তাতে কোন সন্দেহ নেই। কারণ গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে ১৪০ গোলে উড়িয়ে দেওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালকে ৩০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে শেষ চারে বাংলাদেশের নারীরা।

নারী ফুটবল দলের অবস্থা যখন কেবলই নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়ার তখন পুরুষ ফুটবল দল যেন লজ্জা ঢাকার মিশনে ব্যস্ত। এশিয়ান গেমস ফুটবলে কখনোই গ্রুপ পর্ব পার হতে না পারা পুরুষ দলের সামনে এবারেও সে হতাশার হাতছানি। কারণ এরই মধ্যে নিজেদের প্রথম ম্যাচে উজবেকিস্তানের কাছে ৩০ গোলে হেরে বসেছে জামাল ভুইয়া, আবদুল্লাহ, তপু বর্মনরা। প্রথম ম্যাচে এমন বিধ্বস্ত হওয়ার পর এবার তাদের সামনে থাইল্যান্ড। যে দলটি কিনা তাদের প্রথম ম্যাচে কাতারের মত দলের সাথে ১১ গোলে ড্র করেছে। কাজেই এই থাইল্যান্ডের সাথে কতটা প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারে জেমি ডে এর শীষ্যরা সেটা সময়ই বলে দেবে। ২০১৫ সালে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের পর ৩ বছরের ব্যবধানে আবার মুখোমুখি হচ্ছে দুই দেশ। তিন বছর আগের লড়াইটা ছিল বাংলাদেশ জাতীয় দলের সঙ্গে থাইল্যান্ড অনূর্ধ্ব২৩ দলের। নাসির উদ্দিন চৌধুরীর গোলে বাংলাদেশ জিতেছিল ১০ ব্যবধানে। এবার মুখোমুখি দুই দেশের অনূর্ধ্ব২৩ দল। জাকার্তায় এশিয়ান গেমস ফুটবলে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে থাইল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলবে বাংলাদেশ।

দলটির বিপক্ষে পরিসংখ্যানেও বেশ পিছিয়ে বাংলাদেশ। যদিও বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ফুটবল ইতিহাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে থাইল্যান্ডের নাম। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচটি ছিল এ দেশটির বিরুদ্ধে। ১৯৭৩ সালের ২৭ জুলাই মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে মারদেকা কাপের ওই গ্রুপ ম্যাচটি ড্র হয়েছিল ২২ গোলে। ৪৫ বছর আগে আন্তর্জাতিক ফুটবলে পা রাখা বাংলাদেশ পরে আরো ১৩বার মুখোমুখি হয়েছে থাইল্যান্ডের। ৩টি জয় আছে। আছে দুটি ড্রও। বাকি ৮টিতে হেরেছে বাংলাদেশ। তাই আজ কি আরো একটি হার অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের জন্য সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা। তবে এটা ঠিক কোন লক্ষ্য ছাড়াই আজ এশিয়ান গেমসে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে থাইল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। লক্ষ্য যদিও একটি আছে, আর তা হচ্ছে মান বাঁচানো।

পুরুষ দলের যখন এমন অবস্থা। মাঠে কেমন খেলবে তার নিশ্চয়তা যখন দিতে পারছেননা তখন নারী দল রয়েছে দুর্দান্ত ফর্মে। সাফ অনূর্ধ্ব১৫ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে আজ স্বাগতিক ভুটানকে সামনে পেলেও তা নিয়ে মোটেও চিন্তিত নয় মারিয়ার দল। কারণ গত দুই/তিন বছর ধরে যে ফুটবল খেলছে মেয়েরা তাতে কোন প্রতিপক্ষই এখন তাদের সামনে কোন বাধা নয়। তাই আজকের সেমিফাইনালেও ভুটানকে কোন বাধা মনে করছেনা নারীরা। তাদের লক্ষ্য এখন একটাই, আর তা হচ্ছে ভুটানকে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করা। আর ফাইনালে সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ হিসেবে ভারতকে বিবেচনা করছে বাংলাদেশ দল। গত আসরে যাদেরকে দুইবার হারিয়ে প্রথমবারের মত শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ দল। গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে যেভাবে খেলেছে মেয়েরা সেভাবে খেলতে চান ভুটানের বিপক্ষেও। যদিও ভুটান স্বাগতিক দল, তারপরও তাদের হারানোর ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী মারিয়া মান্ডার দল।

দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, তার শীষ্যরা দারুন ফর্মে রয়েছে। একসাথে লম্বা সময় ধরে খেলার সুবাধে তাদের মধ্যে বুঝাপড়াটা বেশ ভাল। তাই মাঠেও তার প্রতিফলনটা দেখা যাচ্ছে। এখন সেমিফাইনাল জিতে আগে ফাইনাল নিশ্চিত করার মিশন নিয়ে আজ মাঠে নামবে বাংলার কিশোরীরা। দলের অধিনায়ক থেকে শুরু করে কোচ সহ সবাই একবাক্যে তাদের প্রত্যাশার কথাটা জানিয়ে দিচ্ছেন। আর তা হচ্ছে ফাইনাল নিশ্চিত করা। আর সেটা তারা বলতে পারছেন একেবারে সাহসিকতার সাথে। কারণ মেয়েরা তাদের সে ফর্ম দেখাতে সক্ষম হয়েছে। এখন আর দুটি ম্যাচ জিতে আরো একবার টুর্নামেন্টের শিরোপা ঘরে তুলতে চায় বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল।

নারীদের সামনে যখন দুটি ম্যাচ তেমনি পুরুষদের সামনেও দুটি মাচ বাকি। কিন্তু দু দলের প্রত্যাশা ভিন্ন। নারীরা যেখানে প্রতিপক্ষের জালে কয় গোল দেবে সে হিসেব করছে সেখানে পুরুষ দল ভাবছে কিভাবে কম গোল খাওয়া যায়। নারী দল যেখানে ভাবছে প্রতিপক্ষকে কিভাবে লজ্জায় ডুবানো যায়, সেখানে পুরুষ দল ভাবছে কিভাবে লজ্জার হাত থেকে বাঁচা যায়। কারন পুরুষ দল যেখানে এখন হারে দক্ষিণ এশিয়ার দল ভুটানের কাছেও সেখানে নারীরা দক্ষিণ এশিয়ার পরাশক্তি ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জেতে। তাই আজ ভুটান এবং ইন্দোনেশিয়া দু জায়গা থেকে অন্তত দু ধরনের সংবাদ আসবে সেটা অনেকটাই নিশ্চিত। তারপরও পুরুষরা ভাবছে কিভাবে এই কঠিন সময়টা কাটিয়ে উঠা যায়। এশিয়ান গেমসে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রতিপক্ষ থাইল্যান্ড বাংলাদেশের জন্য অজেয় কোনো দল নয়। কিন্তু দেশটির সঙ্গে আন্তর্জাতিক ম্যাচ সেভাবে খেলা হয় না বাংলাদেশের। বঙ্গবন্ধু কাপের আগের সব লড়াই হয়েছিল দুই দেশের জাতীয় দলের। তবে এশিয়ান গেমস ফুটবলে এটাই হবে দুই দেশের প্রথম দেখা। তবে আজ বিকেলের এ লড়াইয়ে নামার আগে বাংলাদেশের চেয়ে মানসিকভাবে একটু হলেও এগিয়ে থাকবে থাই যুবারা। কারণ নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ যেখানে ৩০ গোলে হেরেছে উজবেকিস্তানের কাছে সেখানে থাইল্যান্ড ১১ গোলে রুখে দিয়েছে ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতারকে। একেবারে শেষ মুহূর্তের এক গোলে পয়েন্ট কেড়ে নেয় থাইল্যান্ড।

ফিফা র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে থাইল্যান্ড। বাংলাদেশ যেখানে ১৯৪ তম স্থানে সেখানে থাইল্যান্ডের অবস্থান ১২২ তম স্থানে। দুই দেশের ফুটবলের এ যখন পার্থক্য তখন তাদের যুব দলের একটা তফাৎ থাকবে সেটাই স্বাভাবিক। তবে বয়সভিত্তিক ফুটবলে সামপ্রতিক ভালো করে আসায় একটু সম্ভাবনাতো থাকছেই লালসবুজ জার্সিধারীদের। দুই দেশের জাতীয় দল সর্বশেষ মুখোমুখি হয়েছিল ২০১২ সালে ব্যাংককে ফিফা প্রীতি ম্যাচে। ওই ম্যাচে বাংলাদেশের জালে ৫ গোল দিয়েছিল থাইল্যান্ড। তবে বাংলাদেশ সে সব অতীত ভুলে নিজেদের সেরাটা দিতে পারে কিনা সেটাই এখন দেখার বিষয়।

x