পাহাড়ে বাড়ছে সুগন্ধী কালোজিরা ধানের আবাদ

সমির মল্লিক : খাগড়াছড়ি

সোমবার , ৪ নভেম্বর, ২০১৯ at ১০:২০ পূর্বাহ্ণ
21

প্রকৃতিতে চলছে হেমন্তের হাওয়া। শিশির ভেজা হেমন্ত জানান দিচ্ছি কদিন দিন পরেই শীত নামবে। হেমন্তে প্রকৃতির সবখানেই নিসর্গের ছোঁয়া। বৈচিত্র্যে ভরা পার্বত্য চট্টগ্রামে হেমন্ত আরো বেশি স্নিগ্ধ। হেমন্তের মাঠজুড়ের পাকা ধানের শোভা। কাঁচা সবুজ ধান কোথাও কোথাও হলুদ হয়ে যাচ্ছে। দিগন্ত বিস্তৃতি সবুজ ধান ক্ষেতের মাঝে কালো শীষও শোভা পাচ্ছে। সবুজ ধানের সাথে চাষ হচ্ছে ‘সুগন্ধী কালো জিরা’ ধান। পার্বত্য এলাকার কৃষকদের মাঝে কালো জিরা জাতের ধান চাষের আগ্রহ বাড়ছে। মূলত চড়া বাজার মূল্যের কারণে কৃষকরা এই জাতের চাষ করছে। খেতে সুস্বাদু এই জাতের ধান চাষ করে লাভবান হচ্ছে কৃষকরা।
খাগড়াছড়ির পানছড়ির সমতল ধানি জমি, দীঘিনালা মেরং পুরাতন বোয়ালখালী, মেরং. রশিকনগর, বাবুছড়া, বড়াদাম, মাটিরাঙ্গার গোমতি, তাইন্দং. তবলছড়িসহ বিস্তৃতি এলাকায় বিভিন্ন জাতের ধানের পাশাপাশি সুগন্ধি কালো জিরা ধানের চাষ হচ্ছে।
মাটিরাঙ্গার কৃষক ইব্রাহিম মিয়া জানান,‘ নিজের বসতবাড়ি পাশেই ৬ শতক জমিতে কালো জিরা ধানের আবাদ করেছি।আশা করছি ভালো ফলন হবে। গত মৌসুমে প্রতি কেজি কালো জিরা ধানের চাল বিক্রি করেছি ১শ টাকায়। সাধারণত আমন মৌসুমে উৎপাদিত বিভিন্ন জাতের চাল বিক্রি হয় ৩০ থেকে ৫০ টাকায়। দ্বিগুণ লাভের আশায় কালো জিরার চাষ করেছি। অত্যন্ত সুগন্ধি যুক্ত ও সুস্বাদু হওয়ায় কালো জিরা কদর বেশি। ’
স্থানীয় আরেক কৃষক তোহুর আলী জানান,‘ এবার প্রথমবারে মত ১০ শতক জমিতে কালোর আবাদ করেছি। অন্যান্য ধানের তুলনায় এর দাম বেশি হলেও ফলন কম হয় । বর্তমানে স্থানীয় বাজারে গত মৌসুমের কালো জিরা চাল বিক্রি হয় ১শ থেকে ১শ ২০ টাকা দামে। গত মৌসুমের কালো জিরা চাল বিক্রি করে ৩০ হাজার আয় করেছি। ’
সরেজমিনে খাগড়াছড়ি দীঘিনালায় বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখায় যায়,ব্যাপক হারে কালো জিরা ধানের আবাদ হচ্ছে। কৃষকরা এটি মূলত সরাসরি ভোক্তা পর্যায়ে বিক্রি করে। এতে ভালো দাম পায়। মৌসুমের শুরুতে দাম কিছুটা কম হলেও বাজারের অন্যান্য ধানের তুলনায় কালো জিরা চালের দাম বেশি।’
ভোক্তার পর্যায়ে কালো জিরা চালের চাহিদাও বেশি। তবে সরকারিভাবে দেশীয় জাতের কালো জিরা ধানের আবাদ সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিলে পাহাড়ের এর আবাদ আরো বাড়বে।
খাগড়াছড়ি কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক মর্তুজা আলী জানান, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের সমতল ভূমিতে প্রচলিত ধানের পাশাপাশি কালো জিরা’র আবাদ করে কৃষকরা। এটি বাজার মূল্য চড়া হওয়ায় কৃষকরা ভালো লাভ করতে পারে।’ তবে সরকারিভাবে কৃষক পর্যায়ে প্রণোদনার অভাবে বাড়ছে না সুগন্ধি কালো জিরা ধানের আবাদ।

x