পাকিস্তানে আটক ভারতীয় বৈমানিক মুক্ত হচ্ছেন কাল

আজাদী অনলাইন

বৃহস্পতিবার , ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ at ৯:২৫ অপরাহ্ণ
143

পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে চলমান উত্তেজনা প্রশমনে আটক ভারতীয় বিমানবাহিনীর উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে ফিরিয়ে দিচ্ছে পাকিস্তান।

পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আজ বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) এক ঘোষণায় বলেছেন, শান্তির নিদর্শন হিসাবে শুক্রবারই অভিনন্দনকে মুক্তি দেবে পাকিস্তান।

পার্লামেন্টে এক যৌথ অধিবেশনের ভাষণে তিনি বলেন, ‘আমাদের শান্তি প্রতিষ্ঠার আকাঙ্খা থেকে আমি ঘোষণা করছি, আলোচনা শুরুর প্রথম পদক্ষেপ হিসাবে আগামীকাল আমাদের হেফাজতে থাকা ভারতীয় বিমান বাহিনীর কর্মকর্তাকে পাকিস্তান মুক্তি দেবে।’

এর আগে পাক-পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি পাকিস্তানের জিও টিভিকে বলেছিলেন, আটক ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দনকে ফিরিয়ে দিলে যদি সংঘাত এড়ানো যায় তাহলে পাকিস্তান তাকে ফিরিয়ে দিতে ইচ্ছুক। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ফোনে কথা বলতে চান বলেও জানান তিনি।

পাকিস্তান বুধবার ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি বিমান ভূপাতিত করার দাবি করার পর বিমানটির উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে আটক করে। অভিনন্দনের একটি ভিডিও প্রকাশ করে পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনীর ‘ইন্টার সার্ভিসেস পাবলিক রিলেশন্স’ (আইএসপিআর)।

এ ভিডিও প্রকাশের পর ভারত সরকার তাদের একজন আহত বৈমানিক পাকিস্তানের হাতে আটক হয়েছে উল্লেখ করে এক বিবৃতিতে তাকে দ্রুত এবং নিরাপদে ফিরিয়ে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতেই পাকিস্তান তাদের প্রতিক্রিয়া জানাল।

কাশ্মীরের পুলওয়ামায় হামলার পর থেকেই ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা চরম আকার ধারণ করেছে। তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশও। সংঘাত এড়িয়ে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে দু’দেশকে সমস্যা মেটানোর আহ্বান জানাচ্ছে তারা। এর মধ্যেই শান্তির বার্তা দিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

পাকিস্তানের পার্লামেন্ট অধিবেশনে বিরোধীদলীয় নেতা শাহবাজ শরীফের বক্তব্যের মাঝপথেই তাকে থামিয়ে দিয়ে কথা বলেন ইমরান খান। আটক বৈমানিককে মুক্তির ঘোষণা দেয়ার পাশাপাশি তিনি ভারতকে পরিস্থিতি আর অবনতির দিকে না নেয়ারও আহ্বান জানান।

ইমরান বলেন, ‘ভারত পরিস্থিতি খারাপের দিকে নিয়ে গেলে পাকিস্তানও জবাব দিতে বাধ্য হবে।’ পরিস্থিতি আর আগে বাড়তে না দেয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কেও তাদের ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান তিনি।

ভারত এরই মধ্যে জানিয়েছে, মিগ-২১ এর আটক বৈমানিককে ফেরত পেতে তারা কোনো ধরনের আপস করবে না। নিঃশর্তেই ভারত অভিনন্দনকে ফেরত চায় বলে কয়েকজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে জানিয়েছে এনডিটিভি।

বুধবার সকালে কাশ্মীরের আকাশে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিমান যুদ্ধের পর পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর এলাকা থেকে অভিনন্দনকে আটক করে পাকিস্তানি সেনারা।

ভারতীয় একটি মিগ-২১ জঙ্গিবিমান বিধ্বস্ত হওয়ার সময় এর পাইলট অভিনন্দন প্যারাশুটে করে কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখার অপরপাশে পাকিস্তান অংশে অবতরণ করেন। তারপর থেকেই পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হেফাজতে আছেন তিনি।

কাশ্মীর সীমান্তে পরিস্থিতি এখনো শান্ত হয়নি। ভারত ও পাকিস্তানের সেনাদের মধ্যে বৃহস্পতিবার জম্মু ও কাশ্মীরের কয়েকটি এলাকায় মর্টার শেল নিক্ষেপ এবং গোলাগুলির খবর পাওয়া গেছে।

পুঞ্চ জেলায় সকাল ৬টার দিকে দুপক্ষের মধ্যে গোলাগুলির কথা জানানো হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে। পাকিস্তানের কয়েকটি ফাঁড়ি ধ্বংস করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

পাকিস্তানের সেনারাও এদিন পুঞ্চ, মেনধর, নওশেরার সেনা ফাঁড়ি লক্ষ্য করে মর্টার শেল এবং ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে। গোলাগুলি রাত থেকেই শুরু হয়েছে এবং রাতভর থেমে থেমে তা চলেছে বলে জানিয়েছে পাকিস্তান।

ওদিকে, স্থানীয় এলাকার এক বাসিন্দা বৃহস্পতিবার বিকালেও ভারি গুলির শব্দ শুনতে পাওয়ার কথা জানিয়েছেন। দূর থেকে মর্টার শেলের বিকট শব্দ পাওয়া যাচ্ছে এবং দোকানপাট সব খোলা থাকলেও উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে জানান তিনি।

পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতীয় বিমানবাহিনী জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহম্মদের শিবিরে হামলা চালানোর কয়েক ঘণ্টা পর থেকেই সীমান্তে দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়।

x