পবিত্র ফাতেহায়ে ইয়াজদাহম আজ

আজাদী ডেস্ক

সোমবার , ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৫:০৭ পূর্বাহ্ণ

আজ ১১ রবিউস সানি সোমবার পবিত্র ফাতেহায়ে ইয়াজদাহম। সারা দেশে যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদায় ও ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে দিবসটি পালিত হবে। বড়পীর হজরত আবদুল কাদের জিলানি (র)-এর ওফাত দিবস বিশ্বের মুসলমানদের কাছে ‘ফাতেহায়ে ইয়াজদাহম’ নামে পরিচিত। ‘ইয়াজদাহম’ ফারসি শব্দ, যার অর্থ এগারো। ‘ফাতেহায়ে ইয়াজদাহম’ বলতে রবিউস সানি মাসের এগারো তারিখের ফাতেহা শরিফকে বোঝায়। হযরত বড়পীরকে সকল আউলিয়ায়ে কেরামের সর্দার হিসেবে গণ্য করা হয়। ৫৬১ হিজরীর ১১ রবিউস সানী আধ্যাত্মিক জগতের এ মহান সাধক কোটি কোটি ভক্ত অনুরক্তকে শোক সাগরে ভাসিয়ে দুনিয়া থেকে পর্দা করেন। হযরত মহিউদ্দীন আবদুল কাদের জিলানী (রা) ছিলেন মহানবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তাফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অধস্তন বংশধর। তিনি ৪৭০ হিজরী মোতাবেক ১০৭৭ ঈসায়ী সনে পবিত্র রমজান মাসের ১ তারিখ সেহরির ওয়াক্তে ইরানের জিলান শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা হচ্ছেন বিশিষ্ট বুজুর্গ সাইয়েদ আবু সালেহ জঙ্গি আর মাতা সাইয়েদা উম্মুল খায়ের ফাতেমা। বড়পীর তৎকালীন বাগদাদের শ্রেষ্ঠ বিদ্যপীঠ নিজামিয়া মাদরাসায় কুরআন, হাদীস, ফিকাহ, আকাইদ ইত্যাদি বিষয়ে ব্যাপক পান্ডিত্য অর্জনপূর্বক সেখানে দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করেন। তিনি অসাধারণ আধ্যাত্মিক সাধনা বলে মানুষের মাঝে চারিত্রিক প্রভাব ফেলতে সক্ষম হয়েছিলেন। অকৃত্রিম আল্লাহ প্রেম, কুরআন ও সুন্নাহ হুবহু অনুসরণ, শরীয়ত-ত্বরীকত ও মারিফাতের জ্ঞানেন্বষণ, মাতৃভক্তি, ত্যাগ-নিষ্ঠা, সততা ও সত্যবাদিতার অনন্য গুণে তিনি গুণান্বিত ছিলেন। এ উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, সংস্থা ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। শুধু আজকের দিনই নয়, পুরো রবিউস সানি মাসেই ফাতেহায়ে ইয়াজদাহম উপলক্ষে মিলাদ মাহফিলসহ নানা ধর্মীয় কর্মসূচি পালন করেন মুসলমানরা।
বারভি শরীফ : পাঁচলাইশ ৩নং ওয়ার্ডস্থ মরহুম অলি আহমদ সওদাগর বাড়ির মরহুম জহির আহমদ সওদাগর পরিবারের উদ্যোগে স্থানীয় এবাদত খানায় মাসিক পবিত্র বারভি শরীফ ও ফাতেহায়ে ইয়াজদাহম মাহফিল যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হবে। এ উপলক্ষে গৃহীত কর্মসূচিতে রয়েছে, বাদে মাগরিব থেকে নাতে রাসুল (দ.), খতমে গাউছিয়া শরীফ, মিলাদ-কিয়াম ও আখেরি মুনাজাত। মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করবেন হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ তাহের ও মাওলানা সেলিম উদ্দিন।

x