পদত্যাগ করবেন না কোয়াব সভাপতি দুর্জয়

স্পোর্টস ডেস্ক

বুধবার , ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ at ১২:৫৩ অপরাহ্ণ
19

যে ১১ দফা দাবিতে ক্রিকেটাররা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে তার প্রথমটিতেই রয়েছে কোয়াবের নেতৃত্ব নির্বাচন। ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) নেতৃত্ব নির্বাচন করবে ক্রিকেটাররাই। বোর্ড নির্ধারিত কেউ এখানে আসতে পারবে না। ক্রিকেটারদের এমন দাবি ওঠার পরই আলোচনায় চলে আসে কোয়াবের কমিটির বিষয়টি। শুধু তাই নয়, সোমবার থেকেই গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, কোয়াবের সভাপতি, জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক এবং বর্তমান বিসিবি পরিচালক নাঈমুর রহমান দুর্জয় পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন। কিন্তু গতকাল বিকেলে ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের ইস্যুতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের মিডিয়া ব্রিফিংয়ের পর সংবাদ সম্মেলন করে কোয়াবও। সেখানে উপস্থিত ছিলেন কোয়াব সভাপতি নাঈমুর রহমান দুর্জয় এবং সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল। সংবাদ সম্মেলনেই দুর্জয় জানিয়ে দেন, কোয়াব থেকে আমার পদত্যাগের প্রশ্নই আসে না। তিনি বলেন, ‘আমি বলছি, নির্বাচন আসুক আগে। সেখানে যার সমর্থন সবচেয়ে বেশি, যাকে ক্রিকেটাররা চাইবে- তাকেই নির্বাচিত করবে। সেখানে আমি হই কিংবা অন্য যে কেউ হোক- হতে পারে। অথচ কেউ কেউ বলছে, আমি নাকি পদত্যাগ করছি। কিন্তু এটা ভুল। আমি পদত্যাগ করছি না।’ দুর্জয় বলেন, তারা এখনও ক্রিকেটারদের জন্যই লড়ছেন। তিনি বলেন, ‘আমি পদত্যাগ করবো কেন? আমি তো এখনও ক্রিকেটারদের জন্যই লড়ে যাচ্ছি। প্লেয়ারদের- যেমন- শাহাদাত হোসেন রাজিব, রুবেলদের বিপদের সময় আমরাই শেল্টার দিয়েছি। এখনও তাদের নানা সমস্যায় আমরা সব সময়ই কথা বলি, সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করি।’ দুর্জয় জানান, ধর্মঘট কিংবা ক্রিকেটাররা তাদের দাবি-দাওয়া নিয়ে এবার আর কোয়াবের কারো কাছে আসেনি। তিনি বলেন, ‘প্লেয়াররা বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সব সময়ই আমাদের কাছে আসতো; কিন্তু এবার আমাদের কাছে আসেনি তারা। তাদের এসব বিষয় নিয়ে আমরা কিছুই জানতাম না।’ সংবাদ সম্মেলনে শেষে কথা বলতে গিয়ে নাঈমুর রহমান দুর্জয় বলেন, ‘কোয়াব প্রেসিডেন্ট হিসেবে নয়, বোর্ড পরিচালক হিসেবেও নয়, দিন শেষে আমিও জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার, অধিনায়ক। যারা দাবি-দাওয়া পেশ করেছে তারাও বর্তমান জাতীয় দলের ক্রিকেটার। হয়তো বা তারা আমার চেয়ে বড় স্টার। তবে আমরা উভয়ই দেশের জন্য খেলেছি এবং সেটা বাংলাদেশের জন্য। অন্য কোনো দেশের জন্য নয়। আমি কোনো কাদা ছোঁড়াছুড়ি চাই না। বক্তব্য পাল্টা বক্তব্য চলুক, সেটাও কাম্য নয়। তাতে তিক্ততাই বাড়বে শুধু। পরিস্থিতির একটা গ্রহণযোগ্য সমাধান অবশ্যই কাম্য। কোয়াবের পক্ষ থেকে প্রস্তুত আমাদের কাছে আসলে আমরা মধ্যস্থতা করতে সাধ্যমতো চেষ্টা করবো।’ এদিকে পদত্যাগের ইঙ্গিত দিেেয়ছেন কোয়াবের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমরা কথা বলবো। অলরেডি আমরা মিটিং করেছি। বিস্তারিত সবকিছু জানাবো। আপনারা জানেন, আমাদের দেশে অনেকেই পদ ছাড়তে চান না। আমরা সেরকম ব্যাকগ্রাউন্ডের সংগঠন না।’ এর আগে সোমবার দুপুরে ১১ দফা দাবি তুলে ধরেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নাঈম ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র, এনামুল হক বিজয়, তাসকিন আহমেদ ও জুনায়েদ সিদ্দিকরা। এরমধ্যে কোয়াব বিলুপ্তির ব্যাপারে প্রথম দাবি পেশ করেছেন নাঈম। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের প্রথম দাবি, কোয়াব (ক্রিকেটার ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ) বিলুপ্ত করতে হবে। বর্তমানে এর কোনও কার্যক্রম চোখে পড়ে না। কোয়াব ক্রিকেটারদের প্রতিনিধি হলেও তাদের কখনোই আমরা পাশে পাই না। কোয়াবের প্রেসিডেন্ট এবং সেক্রেটারিকে পদত্যাগ করতে হবে। কোয়াবের প্রেসিডেন্ট এবং সেক্রেটারি কে হবেন তা ক্রিকেটাররা নির্বাচন করবে।’

x