পটিয়ায় সরকারি ভাতা পাইয়ে দেয়ার নামে মহিলার প্রতারণা

মুচলেকা নিয়ে টাকা ফেরত

পটিয়া প্রতিনিধি

সোমবার , ২ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৯:১৩ পূর্বাহ্ণ

পটিয়ায় বিধবা ভাতা, মাতৃকালীন ভাতা ও বয়স্কভাতা পাইয়ে দেয়ার নামে বিভিন্নজন থেকে কৌশলে টাকা আদায়ের মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগে এক মহিলাকে আটক করেছেন ইউএনও হাবিবুল হাসান। পরে প্রতারণা করে বিভিন্নজন থেকে নেয়া ১১ হাজার ৮শ’ টাকা ফেরত ও মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। ওই মহিলার নাম দিলুয়ারা বেগম (৪৩)। তিনি উপজেলার বাহুলী গ্রামের ৮নং ওয়ার্ডের আনসারুল্লাহ্‌র স্ত্রী। গতকাল রবিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান টাকা ফেরত ও মুচলেকা আদায় করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম শিরু ও উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা পিপলু চন্দ্র নাথ। এ সময় প্রতারক মহিলা দিলুয়ারার সহযোগী নাছিমা আকতার (৩০) নামের আরেক মহিলাকেও সতর্ক করে দেয়া হয়।
জানা যায়, দিলুয়ারা বেগম নামের ওই মহিলা এলাকায় সরকারি বিভিন্ন ভাতা পাইয়ে দেয়ার নাম করে বিভিন্ন মহিলা থেকে টাকা আদায় করে প্রতারণা করে আসছিল। এক পর্যায়ে ভাতা পাইয়ে দিতে গড়িমসি করলে যাদের কাছ থেকে টাকা নেয়া হয় তারা টাকার জন্য ওই মহিলাকে চাপ দেয়। এটা জানাজানি হয়ে গেলে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার কানে যায়। পরে ওই দুই মহিলাকে ইউএনও কার্যালয়ে কৌশলে ডেকে এনে সাক্ষীদের সামনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তা স্বীকার করেন। পরে টাকা ফেরত দিয়ে উপস্থিত সবার সামনে আর কোনোদিন এ ধরণের প্রতারণা না করার লিখিত অঙ্গীকার করে ছাড়া পান। এ বিষয়ে ইউএনও হাবিবুল হাসান জানান, সরকারি ভাতা পাওয়ার জন্য কোনো ব্যক্তি নিয়োগ দেয়া হয় না। ওই মহিলা প্রতারণা করে বিভিন্নজন থেকে ভাতা পাইয়ে দেয়ার নাম করে টাকা নিয়ে প্রতারণা করে আসছিল। আমরা খবর পেয়ে টাকাগুলো আদায় করে প্রকৃত টাকার মালিককে ফেরত দিয়েছি এবং তার কাছ থেকে লিখিত মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিয়েছি।

x