পটিয়ায় ছুরিকাঘাতে লেগুনা চালক খুন

পটিয়া প্রতিনিধি

শুক্রবার , ৮ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:১৭ পূর্বাহ্ণ
48

পটিয়া পৌর সদর রেল স্টেশনের কাট্টাইল্যা পাড়ায় আবদুল গফুর (৩৮) নামের এক লেগুনা চালককে ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৬টায় পটিয়া পৌর সদরের রেল স্টেশন এলাকার কাট্টাইল্ল্যা পাড়ার ছায়ের আহমদ কলোনির একটি গলি থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। নিহত গফুর পটিয়া পৌর সদরের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাহুলী গ্রামের মৃত লেদু মিয়ার পুত্র।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত গাড়ি চালক চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া-চট্টগ্রাম শহর রুটে দীর্ঘদিন ধরে চার চাকার লেগুনা পরিবহনের গাড়ি চালিয়ে আসছিল। গত মঙ্গলবার পটিয়া বাস স্টেশন এলাকার
পিটিআই স্কুলের সামনে গাড়ি রাখা নিয়ে পাপ্পু নামে একজন লাইনম্যানের সঙ্গে তার মারামারির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার একদিন পর বৃহস্পতিবার ভোর রাতে অজানা ঘাতকের ছুরিকাঘাতে তার মৃত্যু হল।
নিহতের ছেলে হৃদয় জানায়, তার পিতার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর থেকে সকাল ৬টার দিকে একটা কল আসে। অপরিচিত একজন তখন বলে, তাড়াতাড়ি ৫০ হাজার টাকা নিয়ে আস। না হলে তোমার পিতাকে জবাই করে দেয়া হবে। পরে তার বাবার নম্বরে কল দিলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। নিহতের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম জানিয়েছেন, বুধবার বেলা ১১টায় বাজার খরচ বাবদ আমার হাতে ৩শ টাকা দিয়ে ঘর থেকে বের হয়েছিলেন তিনি। তার সঙ্গে গাড়ির লাইনে কারো সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিল বলে শুনেছি।
পটিয়া অটো-টেম্পো-সিএনজি-মহেন্দ্র পরিবহন সমবায় সমিতির অর্থ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম সেকু জানিয়েছেন, নিহত গফুরের সঙ্গে লাইনম্যান পাপ্পুর একদিন আগে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারামারির ঘটনা ঘটেছিল। সমিতির সভাপতি বিষয়টি মীমাংসা করলেও পাপ্পু তা মেনে না নিয়ে গফুরকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছিল।
পটিয়া থানার ওসি (তদন্ত) জব্বারুল ইসলাম জানিয়েছেন, খুন হওয়া ড্রাইভারের বুকের পাশে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার লাশ উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডটি কী জন্য ঘটেছে, কারা এর পেছনে জড়িত তা তদন্ত করে বের করা হবে।

x