পটিয়ায় গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনায় স্বামী গ্রেপ্তার

পটিয়া প্রতিনিধি

শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ at ৩:৩৯ পূর্বাহ্ণ

পটিয়ায় ৪ সন্তানের জননী মৃত্যুর ঘটনায় অবশেষে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের রশিদাবাদ এলাকায় গত ১৩ নভেম্বর জেসমিন আক্তার (৩০) নামের চার সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে গৃহবধূর ভাই হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে একটি হত্যা মামলার এজাহার দেন। এজাহারটি গতকাল বৃহস্পতিবার পটিয়া থানা পুলিশ হত্যা মামলা হিসেবে রুজু করে স্বামী বদিউল আলমকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করেন।
এজাহার সূত্রে জানায়ায়, বিগত ২০০৫ পূর্বে হাইদগাঁও মহিউদ্দীন চেয়ারম্যান বাড়ির মৃত আহমদুর রহমানের কন্যা জেসমিন আক্তার বাচুর সাথে উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের রশিদাবাদ গ্রামের নুরুল ইসলামের পুত্র বদিউল আলমের বিবাহ হয়। বর্তমানে জেসমিন আক্তারের ১৯ মাসের একটি বাচ্চা সহ ৪টি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্বামী বদিউল আলম প্রায় সময় তার স্ত্রী জেসমিন আক্তার কে চাপ প্রয়োগ করে বাবার বাড়ি থেকে যৌতুক আদায় করত। কয়েকদিন আগে স্বামী বদিউল আলম স্ত্রী জেসমিনকে তার মায়ের থেকে আরো কিছু টাকা এনে দেওয়ার চাপ প্রয়োগ করে। এতে জেসমিন অপারগতা প্রকাশ করে। এতে বুধবার রাতে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে স্ত্রী জেসমিনকে মারধর করে তার স্বামী। রাত ২টার মধ্যে দুই দফা শারীরিক নির্যাতনে জেসমিন মারা যায়। পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানিয়েছেন, এ ঘটনায় গৃহবধূর ভাই বাদী হয়ে পটিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। এ মামলায় স্বামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতের প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন রিপোর্ট পেলে মূল বিষয়টি জানা যাবে।

x