নেতা-কর্মীদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত খোকা

জুরাইনে চিরশায়িত

শুক্রবার , ৮ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:১৫ পূর্বাহ্ণ
103

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকা মহানগর শাখার সাবেক সভাপতি সাদেক হোসেন খোকার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন দলের নেতাকর্মীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নানা-শ্রেণিপেশার মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের পর দুপুরে তার মরদেহ নয়া পল্টনের কার্যালয়ের সামনে আনা হলে অশ্রুজলে প্রিয় নেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানায় তারা। প্রথমে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় প্রয়াত নেতার কফিনটি দলীয় পতাকা দিয়ে
মুড়িয়ে দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর দলের পক্ষ থেকে কারাবন্দি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে কফিনে ফুল দেওয়া হয়। কালো কাপড়ে মোড়া অস্থায়ী মঞ্চে রাখা হয় খোকার কফিন। নেতা-কর্মীদের কফিনের সামনে কাঁদতে দেখা যায়। বিএনপি মহাসচিবসহ নেতারাও অশ্রুসজল ছিলেন। খবর বিডিনিউজের।
দলের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের প্রতি পরিবারের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে খোকার বড় ছেলেন প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন বাবার আত্মার মাগফেরাতের জন্য দোয়া চান। এর আগে কার্যালয়ের সামনের খোকার জানাজায় ইমামতি করেন উলামা দলের আহ্বায়ক মাওলানা শাহ নেছারুল হক। এরপর তার কফিনে স্যালুট জানায় সেক্টার কমান্ডার শাহজাহান ওমরের নেতৃত্বে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল। সকাল ৮টা থেকে নয়া পল্টনের অফিসের নিচতলায় কোরানখানি অনুষ্ঠিত হয়। নয়া পল্টনের কার্যালয় থেকে ফকিরেরপুল মোড় পর্যন্ত সড়ক ও তার পাশ-পাশের গলিতে হাজার হাজার নেতা-কর্মী-সমর্থক জানাজায় দাঁড়ান। পুরো পল্টন রোড কানায় কানায় পূর্ণ হয়। তখন ফুটপাতে হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ধর্মাবলম্বীরাও মাথা নিচু করে শ্রদ্ধা জানান।
পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকার জুরাইন কবরস্থানে বাবা-মার কবরের পাশে চিরশয়ান নিলেন সাদেক হোসেন খোকা। যুক্তরাষ্ট্র থেকে লাশ ঢাকায় আনার পর বৃহস্পতিবার সংসদ ভবন প্রাঙ্গণ, নয়া পল্টনের বিএনপির কার্যালয়, নগর ভবনসহ ছয়টি স্থানে জানাজার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হয় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন। এরপর জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হয় খোকাকে। এই কবরস্থানে তার মা সালেহা খাতুন ও বাবা এম এ করীমের কবর রয়েছে। দাফনের সময় পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিবউন নবী খান সোহেল। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খোকা ক্যান্সার নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। পাঁচ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন তিনি, এর মধ্যে দুর্নীতির কয়েকটি মামলায় তার দণ্ড হয়েছিল। তার পাসপোর্টের মেয়াদও গিয়েছিল ফুরিয়ে। তবে তার মৃত্যুর পর জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে জানাজায় অংশ নিয়েছিলেন নিউ ইয়র্ক কনস্যুলেটের প্রতিনিধি; লাশ দেশে আনার বিষয়ে সরকারও করেছিল সহযোগিতা।

x