নুসরাত জাহান পুষ্পের একক আবৃত্তি সন্ধ্যা

আনন্দন প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ৩১ অক্টোবর, ২০১৯ at ৫:৩৫ পূর্বাহ্ণ
31

আবৃত্তিশিল্পী নুসরাত জাহান পুষ্প। জন্ম ২০০২ সালের ১৪ই জুলাই। সে এখন সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় একাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়নরত। সাংস্কৃতিক জগতে তার পদার্পণ ২০১৭ সালে। বাবা মা থেকে অনুপ্রেরণা পেয়ে বান্ধবী প্রিয়ার হাত ধরেই স্বদেশ ৫ম কর্মশালায় আসে সে । সৃষ্টিশীলতার রঙিন দরজা খুলে যায় তার সামনে। স্বদেশের আলোয় ধীরে ধীরে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নিজের জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছে পুষ্প। দেড় বছরের মাথায় সে স্বদেশের অনুষ্ঠান ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক পদে অভিষিক্ত হয়ে স্বদেশের সাথে থেকে আবৃত্তি চর্চা করে যাচ্ছে । তারই ধারাবাহিকতায় ‘অপসংস্কৃতির যুগে দেশীয় সংস্কৃতির চর্চায়’ এ শ্লোগানকে সামনে নিয়ে এগিয়ে চলা স্বদেশ আবৃত্তি সংগঠনের আয়োজনে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির গ্যালারী হলে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘এসো হাত ধরি কবিতার’ শিরোনামে একক আবৃত্তি সন্ধ্যার ৭ম পর্ব। এতে কুড়িটি মুখস্থ কবিতা আবৃত্তি করে দর্শকদের মুগ্ধ করেন সংগঠনের অনুষ্ঠান ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক নুরসাত জাহান পুষ্প। স্বদেশ আবৃত্তি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোহাম্মদ সেলিম ভূঁইয়ার পরিচালনায় এ অনুষ্ঠাটি উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ আলী, স্বদেশ আবৃত্তি সংগঠনের উপদেষ্টা কবি ও লেখক শারূদ নিজাম, সম্মিলিত আবৃত্তি জোট চট্টগ্রাম এর সভাপতি হাসান জাহাঙ্গীর, সহ সভাপতি নিশাত হাসিনা শিরিন ও যুগ্ম সম্পাদক দেবাশীষ রুদ্র। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কবি ও লেখক অধ্যাপক শেখ মঈনুল হক চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন চৌধুরী ও সংগঠনের সহ সভাপতি কবি আব্দুল কাদের আরাফাত। স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সহ সভাপতি নাসির আহমেদ । সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সহ সভাপতি লায়ন শিবু প্রসাদ ভদ্র। পুষ্প এক এক করে ত্রাণ- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, প্রথম অতিথি – নির্মলেন্দু গুণ, আমি আজ কারো রক্ত চাইতে আসিনি- নির্মলেন্দু গুণ, তুই কি আমার দুঃখ হবি? আনিসুল হক, ভালো মেয়ে খারাপ মেয়ে – সুবোধ সরকার, কান্ডারী হুঁশিয়ার! – কাজী নজরুল ইসলাম, তোমরা যখন – সুফিয়া কামাল, তখন সত্যি মানুষ ছিলাম – আসাদ চৌধুরী , পরাণের গহীন ভিতর – সৈয়দ শামসুল হক , বাঙলা ছাড়ো- সিকান্দার আবু জাফর, মামার ঘুম- অভীক বসু, ঠিকানা – আতোয়ার রহমান, দুঃসময়- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর , স্ববিরোধী- নির্মলেন্দু গুণ, মুজিব – মুহাম্মদ সামাদ, পান্থজন- শামসুর রাহমান, মনে পড়ে – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর , তারপর- পূর্ণেন্দু পত্রী , মিতব্যয়ী – অমিয়কৃষ্ণ রায় চৌধুরী , আমি বাংলায় গান গাই – প্রতুল মুখোপাধ্যায়মোট ২০ টি কবিতা পরিবেশন করেন। পুষ্পের আবৃত্তি সন্ধ্যার আবহ সংগীতে সহযোগিতা করেন সঙ্গীত শিল্পী অভিষেক দাশ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাদাব মান্নান চৌধুরী ও সানজিদা রহমান। আবৃত্তিশিল্পী হিসেবে পুষ্প এগিয়ে যেতে সকলের সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করছে।

x