নাগরিক সভ্যতার খণ্ডচিত্র

সালমা বিনতে শফিক

মঙ্গলবার , ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ at ৫:২৬ পূর্বাহ্ণ
58

আমার বন্ধুর দুই ছেলে শহরের নামী বিদ্যালয়ের ছাত্র। ওদেরকে আনা নেওয়া করার জন্য বন্ধুটিকে প্রতিদিনই যেতে হয় সেখানে, কখনও সকাল দুপুর দুই বেলা, কখনওবা কেবল দুপুরে, ছেলেদের বাবার সঙ্গে বোঝাপড়ার ভিত্তিতে। এক দুপুরে ছুটির আগে স্কুলের আঙিনায় দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিল সে ছেলেদের জন্য অন্য মায়েদের সঙ্গে। কাছেই বাবাদের একটা ছোট্ট জটলা। সেখানে আলাপ চলছে এই বিদ্যালয়েরই এক রূপবতী শিক্ষককে নিয়ে। জরুরী কোন প্রয়োজনে স্কুল প্রাঙ্গন ধরে হেঁটে ফিরছিলেন সেই শিক্ষক। একজন বাবা বলেই ফেললেন, এই অপ্সরীকে একান্তে পেলে জীবন ধন্য হয়ে যেত। না, তিনি এতো রেখেঢেকে বলেননি। যা বলার সরাসরিই বলেছেন তিনি, তার নিজস্ব ভাষায় তাঁরই পুত্রকন্যা’ র বন্ধুদের বাবাদের সামনে দাঁড়িয়ে। অন্য বাবারা বেশ মজা পেলেন, কেউ হো হো করে হেসে উঠলেন, কেউবা মুচকি হাসলেন, কেউবা জিবে কামড় দিলেন। তবে কেউ মুখ ফুটে বলেননি- ছি ভাই! এসব কি বলেন? — না না, একজন বলেছিলেন। প্রতিবাদ করেছিলেন, ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন, কারণ সেই শিক্ষক তার নিকটাত্মীয়, বড় বোনের মতো। এ-নিয়ে ক্ষীণ একটা বচসা হয়ে যায় বাবাদের মাঝে। খুব দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায় বাবাদেরই দক্ষতায়। অদূরে দাঁড়ানো মায়েদের জটলায় বাক্যহারা মায়েরা। সবাই জামা কাপড়, ওড়না, শাড়ি টেনেটুনে ঠিকঠাক করতে থাকে।
ওই বাবাদের কেউ কিন্তু অশিক্ষিত নয়। সমাজের উঁচু তলার মানুষ সবাই। নামী বিদ্যালয়ে সন্তান পড়ছে, নিচু তলা থেকে আসার কোন কারণ নেই। সেই বাবাদের মতো লক্ষ বাবা আছেন আমাদের শহরে শহরে, স্ত্রী পরিজন নিয়ে সুখে ঘর করছেন, সফল মানুষ হিসেবে নানা কীর্তির স্বাক্ষর রাখছেন। তাদেরকে নিয়ে বিশদ রচনা লেখার অবকাশ নেই। তবে কখনো কি তারা ভেবে দেখেছেন, তাদের ছেলেরা কোন মেয়েকে নিয়ে এমন মন্তব্য করলে কেমন হবে? কিংবা অন্য কোন ছেলে তাদের স্ত্রী কন্যা কে নিয়ে এভাবে কথা বললে কেমন লাগবে? শুধু এভাবে ভেবে দেখলেই কিন্তু সমাজটা বদলে যেতে পারে। এখনও আশা করি সেদিন আসবে, খুব শীগগিরই।
কিন্তু আমার বন্ধুটি বদলে গেছে সেদিন থেকে। ঝটপট একটা বোরকা কিনে ফেলেছে, আরও কয়েকটা সেলাই করতে দিয়েছে। সব জায়গাতে না হলেও ছেলেদের স্কুলে যাবার সময় বোরকা ছাড়া যাবার কথা ভাবতেই পারেনা। বোরকা ছাড়া ও নাকি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে, কারণ সেই আধুনিক বাবারা তো আশেপাশেই থাকে।
মনে পড়ে যায়, ছেলেবেলায় ওদের বাড়িতে পারিবারিক এ্যালবামে দেখেছিলাম, ওর মা খালাদের ছবি, ষাট কি সত্তরের দশকে তোলা। একেকজন যেন শবনম, সুজাতা, শর্মিলী, কবরী, শাবানা, ববিতা। কি শাড়ি পরার ঢং, চুলের খোঁপা! সাদাকালো ছবি মন রাঙিয়ে দিয়েছিল সেদিন। এখন আমরা কত উন্নত! কত সভ্য! কত ডিজিটাল! শিক্ষার হার বেড়েছে, জীবনযাত্রার মান বেড়েছে। এই একুশ শতকে এসে আধুনিক মেয়েকে খোলসে ঢুকে পড়তে হচ্ছে, বেগম রোকেয়ার ‘অবরোধবাসিনী’ দের মতো করে। না কাঠমোল্লাদের ভয়ে নয়, এবার ভয় আধুনিক পুরুষদের নিয়ে। শিক্ষা, অর্থনীতি সব সুচকে এগিয়ে থাকলেও রুচিবোধের সুচক বোধ করি নিচের দিকেই চলে যাচ্ছে, সকলের অজান্তে।

x