দেশজুড়ে কালবৈশাখীনিহত ৮

শনিবার , ১৮ মে, ২০১৯ at ১০:১১ পূর্বাহ্ণ
1130

জ্যৈষ্ঠের শুরুতে প্রচণ্ড কালবৈশাখী ঝড়ের মধ্যে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ছাউনি, দেয়াল ও গাছের নিচে চাপা পড়ে এবং বজ্রপাতে অন্তত আট জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে ঝড়ে ঘরবাড়ি ও ফসলের ক্ষয়ক্ষতিসহ বেশ কয়েকজন আহতও হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ঢাকায় চার জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরে দুই জন, নওগাঁর পোরশায় দুই জন ও বগুড়া সদরে একজনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। খবর বিডিনিউজের।
সন্ধ্যায় ঝড়ের মধ্যে রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় একটি ভবনের দেওয়াল ধসে দুই জন ও জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে অস্থায়ী প্যান্ডেল ভেঙে একজন নিহত হয়েছেন। আহত অন্তত ২০ জনের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে পুলিশ জানিয়েছে।
বাড্ডা থানার এসআই গোলাম মোস্তফা বলেন, ঝড়ের মধ্যে উত্তর বাড্ডার প্রাণ আরএফএল সেন্টারের পাশে অস্থায়ী পার্কিংয়ের দেওয়াল ধসে ঘটনাস্থলে বুলবুল বিশ্বাস (২৮) ও তপন (২৭) নামে দুজনের মৃত্যু হয়। আশঙ্কজনক অবস্থায় একজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়, প্রাণ আরএফএল সেন্টারের পাশে একটি খোলা জায়গার চারপাশে দেওয়াল তুলে গাড়ি পার্ক করে রাখা হত। ওই পার্কিংয়ের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা নারায়ণ দাশ জানান, ‘ঝড় শুরু হলে বিকট শব্দে একপাশের দেওয়াল ফুটপাতে পড়ে।’
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, ইফতারের পরে বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে অস্থায়ী প্যান্ডেলের নিচে মুসল্লিরা নামাজ পড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এসময় ঝড়ের কবলে পড়ে ঘটনাস্থলেই শফিকুল ইসলাম (৩৬) নামে একজন নিহত হন। এছাড়া আহত অন্তত ২০ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।
আবহাওয়াবিদ শাহীনুল ইসলাম জানান,সন্ধ্যা ৭টা ২ মিনিটে ঢাকায় ৬৫ কিলোমিটার বেগে কালবৈশাখী বয়ে যায়। তবে সন্ধ্যা ৭টা ৫ মিনিটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ঝড়ের গতিবেগ ছিল ৯৩ কিলোমিটার, এটাই ছিল ঢাকায় ঝড়ের সর্বোচ্চ গতিবেগ।

x