দুর্ঘটনা রোধে সচেতনতার বিকল্প নেই

ভাটিয়ারীতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধনে বক্তারা

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি

বুধবার , ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ at ১১:০১ পূর্বাহ্ণ
9

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুর্ঘটনার মূল কারণ তিনটি। এগুলো হলো ওভারস্পিড, ওভারটেকিং ও ওভারলোড। এ ছাড়া গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোনে কথা বলা ও ট্রাফিক আইন অমান্য করার কারণে দুর্ঘটনা ঘটে। এ পাঁচটি বিষয় রোধ করা গেলে দুর্ঘটনা কমে যাবে। পাশাপাশি দুর্ঘটনা রোধে মানুষের সচেতনতার বিকল্প নেই। মানুষ সচেতন হলেও দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে। এ ক্ষেত্রে ট্রাফিক আইন প্রয়োগে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকেও আরও কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান তাঁরা। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে সীতাকুণ্ড উপজেলার ভাটিয়ারী সচেতন নাগরিকদের উদ্যোগে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন।
বক্তারা আরো বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা একটি জাতীয় সমস্যা। গাড়ির মালিক, চালক ও সাধারণ জনগণসহ সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব।
ভাটিয়ারী সচেতন নাগরিকবৃন্দের পক্ষে সমন্বয়কারী নুরুল আবছারের সঞ্চালনায় মানববন্ধন চলাকালে সংক্ষিপ্ত সভায় বক্তব্য রাখেন সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক লিটন কুমার চৌধুরী, সাবেক সভাপতি সেকান্দর হোসাইন, ভাটিয়ারী আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আজম জসিম, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, মো. জাহাঙ্গির আলম, শামসুল আরেফিন, আরসি দাশ রবিন্স, জামাল উদ্দিন, মঈনউদ্দিন খান হারুন, আসিফ নেওয়াজ চৌধুরী, মামুনুর রশিদ মামুন, সাইফুল ইসলাম অপু, ইউপি সদস্য মাঈনুদ্দিন, মাসুম, ভাটিয়ারী কার-মাক্রো চালক সমিতির সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান রিপন, আওয়ামীলীগ নেতা রবিউল আলম প্রমুখ।

x