দরিদ্র মানুষকে বাদ দিয়ে দারিদ্র্য বিমোচন সম্ভব নয়

মঙ্গলবার , ৫ নভেম্বর, ২০১৯ at ৫:০৮ পূর্বাহ্ণ
17

নদীর গতি পরিবর্তনের সংগে সংগে বিভিন্নস্থানে চর পড়ে। নদীর ক্রমাগত ক্ষয় সাধন এবং ভরাট প্রক্রিয়ায় একদিকে উঁচু হয়ে চর জেগে উঠে। অন্যদিকে গ্রামের পর গ্রাম নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। নদী ভাঙনের নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে সরকারি অর্থনীতিতে।সুবিধা বঞ্চিত দরিদ্র মানুষগুলো চরম দারিদ্র্যে নিপতিত হচ্ছে। কালকে যারা ছিল একটু স্বচ্ছল আজকে তারা একদম নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। বহু মানুষকে তার আশ্রয়স্থল বারবার পরিবর্তন করতে হয়। আমাদের দেশের প্রায় ৬৫ লক্ষ লোক যা মোট জনসংখ্যার প্রায় ৫ শতাংশ চর এলাকায় বসবাস করে। তারা সবচেয়ে গরীব দুর্দশাগ্রস্ত। তাই দারিদ্র্য বিমোচন কৌশলপত্রের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন চাই । চরবাসীকে উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় নিয়ে আসা। চর-এলাকার প্রধান পেশাই হল চাষাবাদ। এর সংগে জড়িয়ে আছে মৎস্য আহরণ ও গবাদি পশু পালন। এখানে বাংলাদেশের সবচেয়ে দুঃস্থ ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠী বসবাস করে। যদিও চরে চাষের উপযোগী অনেক ভূমি রয়েছে। তারপরও সেখানে জীবিকা এবং কর্মসংস্থানের বাধা হয়ে দাঁড়ায় বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ-নদী ভাঙন, বন্যা, খরা, অতিবৃষ্টি, ঘূর্ণিঝড়, টর্ণেডো, কালবৈশাখী ঝড়। এই সময় তারা মফস্বল শহর বা উপশহরের তুলনায় সরকারি-বেসরকারি সংস্থার কাছ থেকে আর্ত-সামাজিক উন্নয়নে কোন রকম সাহায্য সহযোগিতা পান না। মফস্বল বা শহরের লোকবল যে রকম সুবিধা পেয়ে থাকে চরের অধিবাসীরা যদি তার আংশিক সুবিধাও পেত তাহলে জাতীয় আয় প্রবৃদ্ধিতে তাদের ব্যাপক অংশগ্রহণ থাকত। পর্যাপ্ত প্রাকৃতিক সম্পদ থাকা সত্ত্বেও তারা সেগুলো যথাযথভাবে ব্যবহার করতে পারছে না। সরকারের সুষ্ঠু নীতিমালার অভাবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে কৃষি কাজে বিপুল সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও জাতীয় আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এমনকি পর্যাপ্ত জ্ঞানের অভাবে তারা প্রাকৃতিক দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে ফসল চাষ ও পণ্য সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণে হিমশিম খাচ্ছে। চরে হঠাৎ করে বন্যা এসে যায় বা বালির স্তূপ পড়ে যায়। যার জন্য ফসল ঘরে তুলতে পারে না। জমির উর্বরতা রক্ষার জন্য বিকল্প চাষের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কেও তারা জানে না। অনেকে বারবার নদী ভাঙনের ভয়ে ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য সচেষ্ট হন না। ফলে গরীব গরীবই থেকে যায়।
চর অঞ্চলে কোন রাস্তাঘাট নেই। ফলে চরে আবাদকৃত নানা ধরনের ফসল তারা ন্যায্যমূল্যে ও সঠিক সময়ে বিক্রি করতে পারে না। তাই এ ব্যাপারে সরকার দেশের সব চর নিয়ে আলাদা উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করতে পারেন। এসব হত দরিদ্র মানুষকে বাদ দিয়ে কখনোই দারিদ্র্য বিমোচন সম্ভব নয়।
এম. এ. গফুর, বলুয়ার দীঘির দক্ষিণ-পশ্চিম পাড়, কোরবানীগঞ্জ, চট্টগ্রাম।

x