থেমে নেই শিশুদের প্রতি নৃশংসতা

আজাদী ডেস্ক

রবিবার , ২১ জুলাই, ২০১৯ at ৩:২৬ পূর্বাহ্ণ
52

শিশুদের প্রতি নৃশংসতা থেমে নেই। প্রায় প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ঘটছে শিশু ধর্ষণের ঘটনা। শহর-গ্রাম কোথাও নিরাপদ নয় শিশুরা। খুলশীতে মাদ্রাসায় আট বছরের শিশু ধর্ষিত হয়েছে। বাকলিয়ায় সৎ বাবার হাতে ধর্ষিত হয়েছে নয় বছরের এক শিশু। এছাড়া পটিয়ায় অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে।
মাদ্রাসায় শিশু ধর্ষণ : নগরীর খুলশীর একটি মাদ্রাসায় আট বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে একই মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত ১৫ বছর বয়সী আরেক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। ওই ঘটনায় মামলা দায়েরের পর জয়নাল আবেদীন নামে ওই শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
গত বৃহস্পতিবার খুলশী থানাধীন আল ফালাহ গলি এলাকায় আল মমতাজ তাহফিজুল কোরআন একাডেমীতে ওই শিশু ধর্ষণের শিকার হয় বলে পরদিন থানায় অভিযোগ করেন শিশুটির বাবা তোফায়েল আহমেদ। খুলশী থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) প্রণব চৌধুরী আজাদীকে বলেন, ওই ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের পর পুলিশ জয়নালকে গ্রেপ্তার করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ধর্ষণের দায় স্বীকার করেছে। এর আগে তোফায়েল আহমেদ অভিযোগ করেন, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রতিদিনের মতো হেফজ বিভাগের শিক্ষার্থী তার মেয়ে মাদ্রাসায় যায়। বিকালে মাদ্রাসার টয়লেটে প্রস্রাব করতে গেলে সেখানে আগে থেকে ওত পেতে থাকা জয়নাল আবেদীন মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওইসময় মেয়েটি কান্নাকাটি করলে অভিযুক্ত জয়নাল কাউকে কিছু বললে তাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেয়। পরে ঘটনাটির বিষয়ে শ্রেণি শিক্ষিকা মর্তুজা বেগমকে জানানো হলে বিষয়টি দেখে নেওয়ার কথা বলেন তাকে সান্ত্বনা দেওয়া হয়।
বাসায় ফিরে তার মাকে বিষয়টি জানানো পর উক্ত মাদ্রাসায় গিয়ে জয়নালকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে দোষ স্বীকার করে। ওইসময় ঘটনাটি পুলিশকে জানালে ঘটনাস্থল থেকে জয়নালকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসা হয়।
ধর্ষণে অভিযুক্ত ওই কিশোর সাতকানিয়া উপজেলার ছনখোলা গ্রামের মাহমুদুল হকের ছেলে। সে ওই মাদ্রাসাটির হোস্টেলে থাকে।
সৎ বাবার হাতে ধর্ষিত : নগরীতে সৎ বাবার হাতে ৯ বছরের এক শিশু কন্যা ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত সৎ বাবার নাম সবুজ। তার গ্রামের বাড়ি ভোলা হলেও পরিবার নিয়ে বাকলিয়া থানাধীন তুলাতুলি হাফেজ নগর এলাকার একটি কলোনিতে ভাড়া থাকেন। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দিন। এ ঘটনায় গতকাল সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী শিশুকন্যার মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন বলে নিশ্চিত করেন ওসি।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ৯ বছরের কন্যা শিশুটি সবুজের স্ত্রীর আগের স্বামীর ঘরের সন্তান। আগের স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর ৫ বছর আগে সবুজের সঙ্গে কন্যা শিশুটির মায়ের বিয়ে হয়। সবুজের ঘরেও বর্তমানে ছোট্ট একটি শিশু কন্যা আছে। সবুজের স্ত্রী একটি গার্মেন্টসে কাজ করেন। গতকাল শনিবার সকালে স্থানীয় কয়েকজন সবুজের ঘরের দরজা খুলে ওই কন্যা শিশুটির সাথে সবুজকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পান। পরে স্থানীয়রা জিজ্ঞেস করলে কন্যা শিশুটি সৎ বাবার হাতে নিপীড়নের কথা জানায়। মা কাজে চলে গেলে ৯ বছর বয়সী এই শিশু কন্যাকে সৎ বাবা সবুজ এর আগেও এমন নিপীড়ন করেন বলে জানতে পারেন স্থানীয়রা। এ ঘটনায় এলাকাবাসী সবুজকে আটক করে রাখে। তবে পুলিশ আসার আগে সবুজ পালিয়ে যায়। পরে ভিকটিম শিশু ও তার মাকে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।
প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় এ ঘটনায় মামলা নেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ওসি নেজাম উদ্দিন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। তবে অভিযুক্ত সৎ বাবা সবুজ পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে।
পটিয়ার ছাত্রী ধর্ষিত : পটিয়া প্রতিনিধি জানান, পটিয়ায় অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী ধর্ষিত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার জিরি ইউনিয়নে ৭ নং ওয়ার্ড আকিয়া বাপের বাড়ির থানা মহিরায় গত শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষিতা ওই ছাত্রীর পিতা মো. জসিম বাদী হয়ে একই এলাকার মো. তৈয়বের ছেলে মো. আরমান ও মো. ইমরানের বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, জসিম তার স্ত্রী রুবিকে নিয়ে তাদের ফুফাতো ভাইয়ের মেয়ের গায়ে হলুদ অনুষ্ঠান শেষ করে বাড়ি ফিরে নিজ রুমে ঘুমিয়ে পড়েন। এ সময় জসিমের দুই মেয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাত ২টার দিকে রুবি বাথরুমে যাওয়ার সময় দেখেন তাদের বড় মেয়ে নিজ রুমে নেই। বিষয়টি তিনি স্বামীকে জানালে দুজনে মিলে এলাকার লোকজনকে নিয়ে মেয়েকে খুঁজতে থাকেন। এক পর্যায়ে নুরুল আমিন নামে এক ব্যক্তির বসতঘরের ফাঁকা জায়গায় রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েকে দেখেন। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে পটিয়া হাসপাতালে, পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে ওই ছাত্রী চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
পটিয়া থানার ওসি মো. বোরহান উদ্দিন জানান, ধর্ষণের দায়ে ২ জনের বিরুদ্বে থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে এবং আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

x