তারুণ্যের উচ্ছ্বাসের কাফনে মোড়া অশ্রুবিন্দু

আনন্দন প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ৭ নভেম্বর, ২০১৯ at ১০:২৫ পূর্বাহ্ণ
11

মঞ্চের আলোয় নবীন শিল্পীদের কন্ঠে একে একে উচ্চারিত হলো কবি শামসুর রাহমান, হুমায়ুন আজাদ এবং সৈয়দ শামসুল হকের একুশটি কবিতা। শিল্পীরা আবৃত্তি করলেন এই তিন কবির প্রেম দ্রোহ ভালোবাসা ও ইতিহাসমাখা নির্বাচিত কবিতাগুলো।
সম্প্রতি জেলা শিল্পকলা একাডেমি গ্যালারী মিলনায়তনে নবীন আবৃত্তি শিল্পীদের নিয়ে এ আনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাচিক শিল্প চর্চা কেন্দ্র ‘তারুণ্যের উচ্ছ্বাস’।
সন্ধ্যা ৬.৩০টায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী পর্বে সংগঠনের সভাপতি ভাগ্যধন বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অতিথি ছিলেন শিক্ষাবিদ হাসিনা জাকারিয়া এবং দৃষ্টি চট্টগ্রাম সভাপতি মাসুদ বকুল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো মুজাহিদুল ইসলাম। আবৃত্তিশিল্পী খাদিজা বেগমের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী কথামালার পর মঞ্চে হুমায়ুন আজাদের কবিতা আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী সাফা মারওয়া (কবিতা: আমার কুড়েঁঘরে), কারিশমা কবির ঐশী (আমি সম্ভবত খুব ছোট্ট কিছুর জন্যে), লতিফুল হাসনা আহাদ (শুভেচ্ছা), জুয়েনা আফসানা (কিছুই আগের মতো নয়), এলেঙ ডিকেন্স গনসালভেজ (আমার ছাত্র ও প্রেমিকার জন্যে), শারমিন সুলতানা (ফুলেরা জানতো যদি)) এবং জেরিন আহমেদ (সেই কবে থেকে)।
এরপর কবি শামসুর রাহমানের কবিতা আবৃত্তি করেন সুষ্ময় পাল শুভ (কবিতা: পান্থজন), মৌসুমি দে (কেউ কি এখন), হাসিবা আক্তার কথা (বারবার ফিরে আসে), সায়াহৃ চক্রবর্ত্তী (ফিরিয়ে নাও ঘাতক কাঁটা), তানভীর হোসাইন রাকিব (তুমি বলেছিলে), রাজন দেবনাথ (যদি ফিরে না আসো) এবং আবৃতা গুপ্তা (কখনো আমার মাকে)। এরপর অনুষ্ঠানের কবি সৈয়দ শামসুল হকের কবিতা আবৃত্তি করেন বিভিন্ন আমন্ত্রিত সংগঠনের নবীন শিল্পীরা। এপর্বে আবৃত্তি করেন সেতার রুদ্র (বোধন আবৃত্তি পরিষদ), সাঈদ ফারহানা রুম্পা (উচ্চারক আবৃত্তি কুঞ্জ), সুলতানা ইয়াসমীন (চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি মঞ্চ), তাহসিন ইশরাক তানহা (অঙ্গণ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়), সামিরা আক্তার (বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ), সিগ্ধা বড়ুয়া (স্বপ্নযাত্রী), জয় চন্দ্র বিশ্বাস (একুশ আবৃত্তি ও মানবিকতা চর্চা কেন্দ্র) এবং অনিক বড়ুয়া (অযান্ত্রিক বাচিক চর্চালয়)।

x