ডায়াবেটিস হলে নিয়মতান্ত্রিক জীবন যাপন করতে হবে

ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের অনুষ্ঠানে ডা. রবিউল

শনিবার , ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ at ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ
26

নগরীর পাহাড়তলীস্থ ৩৭৫ শয্যা বিশিষ্ট আধুনিক এবং বহুমুখী বিশেষায়িত চিকিৎসাকেন্দ্র ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে (আইএইচএল) বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে ফ্রি ডায়াবেটিস স্ক্রিনিং অ্যান্ড কাউন্সিলিং অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে রোগীদের নিয়ে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গতকাল শুক্রবার সকালে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন আইএইচএল-এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন। এর আগে আইএইচএল-এর মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মেজবা উদ্দিনের কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। উদ্বোধনকালে আইএইচএল-এর চেয়ারম্যান বলেন, ডায়াবেটিসকে বলা হয় সাইলেন্ট কিলার। ডায়াবেটিস একবার হয়ে গেলে তা হয়ে যায় সারা জীবনের সঙ্গী। শিশু থেকে বৃদ্ধ, যে কেউ এ রোগে আক্রান্ত হতে পারে। ডায়াবেটিস ও হৃদরোগ এ দুটো পরস্পরের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। দুনিয়াজুড়ে কিডনি ফেইলিওর বা কিডনি বিকল হওয়ার অন্যতম কারণ হলো অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস। ডায়াবেটিস হলে হার্ট, কিডনি এবং দৃষ্টিশক্তির সমস্যা হয়। ৭০ শতাংশ ডায়াবেটিসের রোগী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই অকালে মৃত্যুবরণ করে থাকেন। তবে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে পরিবারের ভূমিকা সবার আগে। আমাদেরকে সুস্থ সবলভাবে বাঁচতে হলে নিয়মিত ডায়াবেটিস আছে কি-না পরীক্ষা করতে হবে। ডায়াবেটিস হলে হতাশাগ্রস্ত হওয়া যাবে না, নিয়মতান্ত্রিক জীবন যাপন করতে হবে। সুষ্ঠু সুশৃঙ্খল জীবনযাপন, নিয়মিত ডায়াবেটিস পরীক্ষা এবং সুষ্ঠু চিকিৎসা পদ্ধতি গ্রহণের মাধ্যমে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রেখে দীর্ঘ জীবন লাভ করা যায়। ডায়াবেটিস রোগীদের এই রোগ নিয়ন্ত্রণে আরো সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন।
ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এখানে সার্বক্ষণিক উন্নতমানের ইমার্জেন্সি সেবা, ল্যাব, রেডিওলোজি, ব্ল্যাড ব্যাংক ইত্যাদি রয়েছে। এর সাথে অন্যান্য ওপিডি সার্ভিস, মেডিসিন সার্জারী, গাইনি নিউরোলজি, অর্থপেডিকে চিকিৎসা সেবা অব্যাহত রয়েছে। চিকিৎসকদের দক্ষতা, সেবার মানোন্নয়নে বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টের জন্য ক্লিনিক্যাল প্রোগ্রাম ও একাডেমিক প্রোগ্রাম হয়ে থাকে। বিত্তবান, মধ্যবিত্ত ও অসচ্ছল থেকে শুরু করে সব ধরনের রোগীর চিকিৎসা সেবার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, শুধু চিকিৎসাসেবা নয়, একজন রোগী ভর্তি থেকে শুরু করে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করা পর্যন্ত হসপিটালিটি বিভাগের মাধ্যমে যাবতীয় সেবা প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির লক্ষ্যে চিকিৎসক, নার্স ও মেডিকেল টেকনিশিয়ানদের জন্য প্রশিক্ষণসহ আবাসিক ব্যবস্থা, দূরবর্তী রোগীর দর্শনার্থীদের থাকার সুবিধার জন্য আবাসন সুযোগ রয়েছে।
এ হাসপাতালে এক ছাদের নিচে সব ধরনের চিকিৎসাসেবার কথা উল্লেখ করে অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন বলেন, এখানে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ (ইনফেকশান কন্ট্রোল), রোগীদের নিরাপত্তা এবং কর্মীদের নিরাপত্তা এই ৩টি বিষয়কে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। এছাড়া কার্ডিয়াক, ট্রান্সপ্ল্যান্ট, নিউরো, অর্থোপেডিক ও গাইনি অবস্‌ ইত্যাদি সম্বলিত ১৪টি মডিউলার অপারেশান থিয়েটার, ৬টি নার্স স্টেশন ও ৬২টি কনস্যালটেন্ট রুম সম্বলিত বহির্:বিভাগ এবং আধুনিক গুণগত মানসম্পন্ন ৫৮টি ক্রিটিকাল কেয়ার বেড, নবজাতকদের জন্য ৪৪ শয্যাবিশিষ্ট নিওনেটাল ইউনিট এবং ৮টি পেডিয়াট্রিক আইসিইউ স্থাপন করা হয়েছে।
হাসপাতালের প্রধান পুষ্টিবিদ মাহফুজা আফরোজ সাথীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে রোগীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের হরমোন ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ মো. মোস্তফা কায়সার। শেষে শতাধিক রোগীকে বিনামূল্যে ডায়বেটিস নির্ণয় করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x