‘ডাবল সেঞ্চুরির’ পেঁয়াজের সাথে সবজির দামও বেশি

আজাদী অনলাইন

শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ at ৩:৪০ অপরাহ্ণ

রান্নায় প্রয়োজনীয় পণ্য পেঁয়াজের দাম খুব দ্রুত চলে যাচ্ছে সাধারণ ক্রেতার নাগালের বাইরে। সেই সাথে বেশি শীতকালীন সবজির দামও।

বর্তমানে বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২২০ টাকা। গত এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ১২০ টাকা। সেই হিসাবে শুধু এক সপ্তাহের ব্যবধানে রান্নায় অতি প্রয়োজনীয় এ পণ্যটির দাম প্রতিকেজিতে বেড়েছে ৯৫ টাকা।

খুচরা বাজারে পেঁয়াজের কেজি এখন ২০০ থেকে ২২০ টাকা। এ অবস্থায় বিকল্প হিসেবে তরকারিতে কাঁচা পেঁপে ব্যবহার করছেন গৃহিণীরা। আমদানির ঘোষণা দেয়া এস আলম গ্রুপের ৫৫ হাজার টন পেঁয়াজ এখনও বন্দরে এসে পৌঁছেনি। তাই এ সংকট সহসাই কাটছে না বলে মনে করছেন আমদানিকারকরা। বাংলানিউজ

শুধু পেঁয়াজের দামই বাড়েনি, বেড়েছে আদা-রসুনের দামও। চীনা আদা ২০০ টাকা, রসুন ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণ দেখিয়ে শীতকালীন সবজির বাজারেও আগুন। এজন্য দেশের বিভিন্ন স্থানে সবজির ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াকে দায়ী করছেন বিক্রেতারা।

আজ শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) নগরীর পাইকারি বাজার রেয়াজউদ্দিন বাজার ঘুরে জানা যায়, ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ১০০-১২০ টাকা, শিম ১১০ টাকা, বেগুন ৬০ টাকা, বরবটি ৫০-৬০ টাকা, বাঁধাকপি ৪০-৫০ টাকা, টমেটো ৯০-১০০ টাকা, মুলা ৪০ টাকা, ঝিঙা ৫০-৬০ টাকা, ঢেঁড়শ ৫০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, তিতকরলা ৬০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ টাকা, আলু ২৫ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, লাউ ৩০-৪০ টাকা, শসা ৫০ টাকা ও কাঁচামরিচ ৬০ টাকায়।

তবে অপরিবর্তিত আছে মাংসের দাম। প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগির ১১৫-১২০ টাকা, লেয়ার মুরগি ২২০ টাকা ও দেশি মুরগি ৪০০-৪৫০ টাকা, হাড় ছাড়া গরুর মাংস ৭০০ টাকা, হাড়সহ ৫৫০ টাকা, ছাগলের মাংস কেজি ৭০০-৭৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজার মাছের দামও তেমন বাড়েনি। রূপচাঁদা ৬০০ টাকা, লাল কোরাল ৫০০ টাকা, রুই ২০০-২৫০ টাকা, কাতাল ৩০০ টাকা, কৈ ৩০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৮০ টাকা, ছোট চিংড়ি ৪০০ টাকা, বড় চিংড়ি ৪৫০-৬০০ টাকা, আধাকেজি ওজনের ইলিশ ৫০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

x