টি-টেন লিগে শুরুটা শুভ হলো না বাংলা টাইগার্সের

নজরুল ইসলাম, আবুধাবী থেকে

রবিবার , ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ at ৯:৪৩ পূর্বাহ্ণ
28

টি-টেন ক্রিকেট মানে চার আর ছক্কার ফুলঝুড়ি। যেখানে ওয়ানডে ক্রিকেটে দুইশ রান বা তার বেশি রান তোলাটা কষ্টকর হয়ে পড়ে সেখানে এখন টি-টেন ক্রিকেটে অনায়াসেই হয়ে যায় দেড়শ কিংবা তার বেশি রান। যদিও গতকাল আবুধাবী টি-টেন লিগে খুব বেশি ঝড় তুলতে পারেনি বাংলাদেশের দল বাংলা টাইগার্স। আর সেটা পারেনি বলেই হার দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরুর করতে হলো টাইগারদের। যদিও এই ম্যাচে ব্যবধানটা গড়ে দিয়েছেন একজন শেন ওয়াটসন। কিভাবে টি-টেন ক্রিকেট খেলতে হয় সেটা দেখিয়েছেন এই অসি অল রাউন্ডার। কিন্তু বাংলা টাইগার্সের ব্যাটসম্যানরা সে রকম ঝড় তুলতে পারেনি। যদিও ম্যাচটা গড়িয়েছিল শেষ বল পর্যন্ত। তবে তাতে জয়টা সেই ডেকান গ্লেডিয়েটর্সের। যেখানে বাংলা টাইগার্সকে তারা ৬ উইকেটে হারিয়েছে। এই জয়ের ফলে গ্রুপ পর্বে প্রথম জয় পেয়ে এগিয়ে থাকল ডেকান গ্লেডিয়েটর্স। এদিকে হার দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরুর করা বাংলা টাইগার্সের জন্য পরের ম্যাচগুলো বেশ কঠিন হয়ে গেল। কারন শেষ চারে যেতে হলে টাইগারদের জিততে হবে পরের ম্যাচ গুলো। যে ঝড় তোলার প্রত্যাশা নিয়ে মাঠে নেমেছিল বাংলা টাইগার্স ঠিক সেভাবে ঝড় তোলা হলো না। ফলে ম্যাচটা জেতা হলো না । টসে হেরে ব্যাট করতে নামা বাংলা টাইগার্সের শুরুটা ভাল হয়নি। দলের ক্যারিবীয়ান ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচার ফিরেন ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই। দলের খাতায় তখন যোগ হয়েছে মাত্র ৯ রান। এরপর কলিন ইনগ্রামকে নিয়ে এগয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন রুশো। দুজন মিলে যোগ করেন ৩৭ রান। ১২ বলে ২টি চার আর ২টি ছক্কায় ২৬ রান করে ফিরেন রুশো। এরপর ইনগ্রাম চেষ্টা করেছেন দলকে টেনে নিয়ে যেতে। কিন্তু বড় ইনিংসের দিকে নিয়ে যেতে পারেননি। ইনগ্রাম ২১ বলে চার ছক্কার সাহায্যে ৩৬ রান করে ফিরলেও বাকিরা খেলতে পারেননি টি-টেনের দাবি অনুযায়ী। ফলে নির্ধারিত ১০ ওভারে ১০৮ রান জমা করে বাংলা টাইগার্স। দলের পক্ষে অন্যান্যের মধ্যে মুরস ১১ বলে ১৫ এবং রবি ফ্রাইলিংক ৭ বলে করেন ১২ রান। ডেকান গ্লেডিয়েটর্সের পক্ষে ৩টি উইকেট নেন দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার প্রিটোরিয়াস। টি-টেন ক্রিকেটে ১০৯ রান এখন আর বড় কোন লক্ষ্য নয়। সেটা প্রমাণ করলেন ডেকান গ্লেডিয়েটর্সের ওপেনার শেন ওয়াটসন। যদিও লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভাল করতে পারেনি ডেকান গ্লেডিয়েটর্স। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই আফগান বিস্ফোরক মোহাম্মদ শাহজাদকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেণ ইংলিশ পেসার লিয়াম প্লাঙ্কেট। দলের খাতায় তখন মাত্র ২ রান যোগ হয়েছে ডেকানের। কিন্তু সে ধাক্কাটাকে মোটেও গায়ে লাগতে দেননি ডেকান গ্লেডিয়েটর্সের অধিনায়ক এবং ওপেনার অস্ট্রেলিয়ান সাবেক অধিনায়ক শেন ওয়াটসন। সঙ্গী হিসেবে পেয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার এন্টন ডেবসিসকে। ৩২ বলে ৬২ রান যোগ করেন এ দুজন। শেষ পর্যন্ত কাইস আহমেদ এসে এ জুটি ভেঙ্গেছেন বটে। তবে সেটা অনেক দেরি হয়ে গেছে। ১১ বলে ২টি চার এবং ২টি ছক্কায় ২৭ রান করা ডেবসিসকে বোল্ড করে ফেরান কাইস আহমেদ। কিন্তু ঝড় থামানো যায়নি ওয়াটসনের। চার নম্বরে ব্যাট করতে নামা ভানুকা রাজাপাকসেকে দ্রুতই ফিরিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার ডেভ ওয়েইস। তবে পরের বলেই ডেকানকে বড় ধাক্কাটা দেন এই ওয়েইস। কারন এবার তার শিকার ঝড় তোলা ওয়াটসন। ২৫ বলে ৩টি চার এবং ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৪১ রান করা ওয়াটসনকে ফেরান ওয়েইস থিসারা পেরেরার ক্যাচ বানিয়ে। এ্‌রপর আর কোন উইকেট ফেলতে পারেনি বাংলা টাইগার্সের বোলাররা। একবল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয় তুলে নেয় ডেকান গ্লেডিয়েটর্স। ম্যাচ সেরা হয়েছেন ব্যাট হাতে দুর্দান্ত করা ডেকান গ্লেডিয়েটর্স অধিনায়ক শেন ওয়াটসন। এদিকে আজ আবার মাঠে নামবে বাংলা টাইগার্স। আজকের ম্যাচে বাংলা টাইগার্সের প্রতিপক্ষ কর্নাটকা তুসকার্স। আর আগামীকাল গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে টাইগার্সরা মুখোমুখি হবে ডেলি বুলসের।

x