জেলে, তবু আলোচনায় নওয়াজই

বুধবার , ২৫ জুলাই, ২০১৮ at ৮:০১ পূর্বাহ্ণ
124

জেলে নওয়াজ শরিফ। তবু ভোটের মুখে সব জল্পনা তাকে ঘিরেই। শোনা যাচ্ছে, তাঁর কিডনি বিকল হওয়ার মুখে। মাঝে মাঝেই অনিয়মিত ঠেকছে হৃদ্‌স্পন্দন। তবু পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই নওয়াজ ও মেয়ে মরিয়মকে ভোটের আগে জেল থেকে বেরোতে দিতে চায় না বলে অভিযোগ। সমপ্রতি দেশের প্রধান বিচাপতির কাছে এমন চাপ এসেছে বলে জানিয়েছেন ইসলামাবাদ হাইকোর্টের বিচারপতি।

এদিকে গত সোমবার বন্দি নওয়াজকেই নিশানায় রেখে তোপ দাগলেন তেহরিকইনসাফের প্রধান ইমরান খান। ভোটের আগে করাচিতে শেষ বেলার প্রচারে গিয়ে তিনি বলেন, ‘নাগাড়ে ভারতের স্বার্থরক্ষা করে চলেছেন নওয়াজ। জেলে বসেও ষড়যন্ত্র করে চলেছেন, কী ভাবে ভোট ভেস্তে দেওয়া যায়। ভোটে রিগিং হবে বলে অমূলক প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। সবটাই নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট করতে।’

কিন্তু কেন? প্রধানমন্ত্রীর দৌড়ে থাকা ইমরানের দাবি, দল কোণঠাসা বুঝতে পেরেই উল্টো খেলা খেলছেন নওয়াজ। দুর্নীতি মামলায় ১০ বছরের জেল হয়েছে তার। এতে তার দলের ভাবমূর্তিও ধাক্কা খেয়েছে বলে এখন ভারতসহ অন্য আন্তর্জাতিক শক্তির সঙ্গে মিলে ষড়যন্ত্র করছেন ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী। পাকভোটে রিগিং হবে বলে প্রচারের পিছনে ভারতীয় গণমাধ্যমেরও কালো হাত আছে বলে দাবি করেছেন ইমরান। একইসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘আন্তর্জাতিক স্তরে দেশের সেনাবাহিনীকে গালমন্দ করাটাও অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন নওয়াজ।’

এ দিকে পাকিস্তানের একাধিক সংবাদমাধ্যম বলছে, জেলে ভাল নেই নওয়াজ। তাঁর রক্তে ইউরিয়া এবং নাইট্রোজেনের মাত্রা বিপজ্জনক সীমায় এসে দাঁড়িয়েছে। কিডনিও বিকল হতে চলেছে। জেলের হাসপাতালে সুবন্দোবস্ত নেই বলেই দ্রুত তাকে অন্যত্র সরানোর সুপারিশ করেছে মেডিক্যাল বোর্ড। রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা জেলে তাকে দেখে গিয়েছেন চিকিৎসকেরা। এখন তত্ত্বাবধায়ক সরকার কী সিদ্ধান্ত নেয়, সেটাই দেখার।

x