জেএসসির উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণে ১৬ হাজার ৪টি আবেদন

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড

আজাদী প্রতিবেদন

মঙ্গলবার , ৮ জানুয়ারি, ২০১৯ at ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ

২০১৮ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষার উত্তরপত্র (খাতা) পুনঃনিরীক্ষণে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে মোট ১৬ হাজার ৪টি আবেদন জমা পড়েছে এবার। সদ্য প্রকাশিত ফলাফলে সন্তুষ্ট হতে না পেরে এ আবেদনগুলো করেছে ১১ হাজার ৪৬৫ জন শিক্ষার্থী। শিক্ষাবোর্ডের তথ্য মতে গতবারের তুলনায় আবেদনকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা এবার বাড়লেও কমেছে আবেদনের সংখ্যা। গতবার (২০১৭ সালে) আবেদনকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৫৩১ জন। আর আবেদন পড়ে ২০ হাজার ৫২১টি। হিসেবে ৪ হাজার ৫১৭টি আবেদন কম জমা পড়েছে এবার। তবে গতবারের তুলনায় আবেদনকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ৯৩৪ জন। ২০১৬ সালের জেএসসি পরীক্ষার উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষনে আবেদনকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৭ হাজার ৬৭০ জন। আর আবেদন পড়ে ১৮ হাজার ৬৪টি।
প্রসঙ্গত, গত ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮ সালের জেএসসির এ ফলাফল প্রকাশিত হয়। আর ২৫ ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি রাত ১২টা পর্যন্ত পুনঃনিরীক্ষনের এ আবেদনগুলো জমা পড়ে। আগামী ২৪ জানুয়ারি পুনঃনিরীক্ষনের ফলাফল প্রকাশের কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মাহবুব হাসান।
বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এবার সব চেয়ে বেশি আবেদন জমা পড়েছে গণিতে। গণিতের উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষন চেয়ে এবার আবেদন পড়েছে ৩ হাজার ৬৭৪টি। গতবার এ সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ৫৫টি। এর আগেরবার (২০১৬ সালে) ২ হাজার ২৯৬টি। গণিতের পর এবার ইংরেজি বিষয়েই আবেদন পড়েছে বেশি। এবার ইংরেজির উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষনে আবেদনের সংখ্যা ৩ হাজার ২৩টি। গতবার এ সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৬৭৮টি। এর আগেরবার আবেদন পড়ে ২ হাজার ২৯৬টি। এরপর বিজ্ঞানে ২ হাজার ৯৮৮, বাংলায় ২ হাজার ২৮০, বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়ে ১ হাজার ৮৪৪, ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষায় ১ হাজার ৮০ এবং আইসিটি বিষয়ে ৬৫৭টি আবেদন জমা পড়েছে।
গণিত ও ইংরেজিতে বেশি আবেদন জমা পড়ার বিষয়ে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, ‘এবার জেএসসির প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে- অন্য বিষয়গুলোর তুলনায় গণিত ও ইংরেজি বিষয়েই পাসের হার সব চেয়ে কম। তাই এই দুটি বিষয় নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মনে সংশয় রয়েছে। যার কারণে বিষয় দুটিতে পুনঃনিরীক্ষনের আবেদন সবচেয়ে বেশি পড়েছে বলে আমরা মনে করছি।’

x