জুলাইয়ে ৮ হাজার কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি

শুক্রবার , ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ at ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ
325

২০১৮১৯ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়েছে ৮ হাজার ২২৯ কোটি ৬১ লাখ টাকা। এই অর্থ থেকে আবার যারা মূল সঞ্চয়পত্র তুলে নিয়েছেন ও উপকারভোগীদের মুনাফা পরিশোধে ব্যয় হয়েছে ৩ হাজার ১৯৩ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। আর শুধু মুনাফা পরিশোধ করা হয়েছে ১ হাজার ৮৯০ কোটি ৩২ লাখ টাকার।

জাতীয় সঞ্চয়পত্র অধিদপ্তর প্রকাশিত সর্বশেষ প্রতিবেদন থেকে দেখা যায়, ২০১৮১৯ অর্থবছরের প্রথম মাসে ব্যাংক, ডাকঘর ও সঞ্চয় অধিদপ্তর থেকে গ্রাহকরা বিভিন্ন স্কিমের ৮ হাজার ২২৯ কোটি ৬১ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র কিনেছেন। একই সময়ে মেয়াদ শেষে মূল সঞ্চয়পত্রের অর্থ ও মুনাফা পরিশোধে ব্যয় হয়েছে ৩ হাজার ১৯৩ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। ফলে জুলাই শেষে সরকারের ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৩৫ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। ২০১৭১৮ অর্থবছরের জুলাই মাসের তুলনায় সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের ঋণ কমেছে ১৫ কোটি টাকা। গত অর্থবছরের জুলাই শেষে সরকারের সঞ্চয়পত্র থেকে ঋণ ছিল ৫ হাজার ৫৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। খবর বাংলানিউজের।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, গত কয়েক মাসের তুলনায় জুলাইয়ে বড় ধরনের প্রবৃদ্ধি দেখা দিয়েছে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে। বিদায়ী অর্থবছরের শেষ চার মাসে সঞ্চয়পত্রের নিট ঋণ ৪ হাজার কোটি টাকার কম। বিদায়ী অর্থবছরের সর্বশেষ মাস জুনে সঞ্চয়পত্রে নিট ঋণ ছিল ৩ হাজার ১৬৬ কোটি টাকা। ২০১৭ সালের মে মাসে এই ঋণ ছিল ৩ হাজার ৩শ কোটি টাকা। পর্যায়ক্রমে এপ্রিলে ছিল ৩ হাজার ৩৫৪ কোটি টাকা, মার্চে ৩ হাজার ৫৮৯ কোটি টাকা। আবার ফেব্রুয়ারিতে সঞ্চয়পত্রে সরকারের ঋণ ছিল ৪ হাজার ১৫৬ কোটি টাকা, জানুয়ারিতে ৫ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা। ২০১৭১৮ অর্থবছরে সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের নিট ঋণের পরিমাণ দাঁড়ায় ৪৬ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা; যা ঘাটতি বাজেট অর্থায়নে সরকার নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা (সংশোধিত) থেকেও ২ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা বেশি। বিদায়ী অর্থবছরে সংশোধিত বাজেটে জাতীয় সঞ্চয় স্কিমসহ সব ধরনের সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের ঋণ গ্রহণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৪ হাজার কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে এ খাত থেকে সরকারের ঋণ নেওয়ার লক্ষ্য রয়েছে ২৬ হাজার ১৭৯ কোটি টাকা।

x