জামিন নিতে এসে ধরা পড়লেন ভুয়া আইনজীবী

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ২১ নভেম্বর, ২০১৯ at ৩:৫০ পূর্বাহ্ণ

নিজেকে তিনি পরিচয় দিতেন আইনজীবী হিসেবে। শুধু চট্টগ্রাম কোর্টের নয়, সুপ্রিম কোর্টেরও। নিজেকে আইনজীবী পরিচয় দিয়ে লালখান বাজারস্থ নিজেদের বাড়িতে বড় একটি সাইনবোর্ডও টাঙ্গিয়েছেন। এতে লেখা হয়, এডভোকেট মোহাম্মদ সালাউদ্দিন চৌধুরী, এলএলবি (অনার্স), এলএলএম, সুপ্রীম কোর্ট কক্ষ নং ২১৬ এবং চট্টগ্রাম চেম্বার দোয়েল ভবন-১২৮। ভিজিটিং কার্ডেও লেখা রয়েছে একই ধরনের কথা। লালখান বাজারে প্রতিবেশী ঠিকাদার ফয়েজ আহমেদ নামে একজনের গাছ কেটে নেয়ার জেরে প্রতিবেশির সাথে পাল্টাপাল্টি মামলায় জামিন নিতে এসে ফেঁসে গেলেন আদালতে।
ফয়েজের করা মামলায় জামিন নিতে এসে তিনি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন আইনজীবী এডভোকেট মোহাম্মদ আবদুর রশিদের। সকাল ১১টায় তিনি আদালতে এসে জামিনের আবেদন জানিয়ে নিজেকে আইনজীবী হিসেবে পরিচয় দেন। গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত শুনানীর এক পর্যায়ে মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক শফি উদ্দিন আইনজীবী হিসেবে তার যথাযথ প্রমাণ দেখাতে বললে আটকে যান সালাউদ্দিন। কাস্টডিতে ঢুকানো হয় তাকে। আইনজীবী হিসেবে প্রমাণ করার জন্য সময় দেয়া হয় বিকেল ৫টা পর্যন্ত। কিন্তু প্রমাণ হাজির করতে না পারায় তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।
রাতের আঁধারে প্রতিবেশি ফয়েজ আহমদের বাড়ি থেকে ৩-৪ লাখ টাকার গাছ কাটার অভিযোগে ফয়েজ আহমদ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন।
উল্লেখ্য, ভুয়া আইনজীবী সালাউদ্দিনও খুলশী থানায় প্রতিবেশি ফয়েজ আহমদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিলেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে কাজী শাহাবউদ্দীন (এসি প্রসিকিউশন) বলেন, জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ২ পক্ষের মামলা হয়। একটি ছিলো তার বিরুদ্ধে আরেকটি তার পক্ষে। মামলায় জামিন নেয়ার সময় তিনি পরিচয় দিয়েছিলেন চট্টগ্রাম আদালতের আইনজীবী হিসেবে। কিন্তু তিনি কোনো আইনজীবী নন। নিজেকে আইনজীবী পরিচয় দিয়ে জামিন নিতে চাইলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে আদালতে প্রেরণ করেছেন।
এদিকে তিনি চট্টগ্রাম আদালতের আইনজীবী নন এ ধরনের একটি চিঠি গত ২৭ অক্টোবর চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক এডভোকেট আইয়ুব খান মামলার বাদী ফয়েজ আহমেদকে প্রদান করেন।
তথ্য মতে, সম্প্রতি তার প্রতিবেশী ফয়েজ আহমদের সাথে গাছ কাটা নিয়ে ঝামেলা হলে সে তার প্রতিবেশী ফয়েজ আহমদ, তার স্ত্রী এবং পুত্রের নামে মামলা করেন। এরপর প্রতিবেশী ফয়েজ কোর্টে তার বিরুদ্ধে মামলা করলে সালাউদ্দিনের পরিচয়ের সত্যতা পাওয়া যায়। পরবর্তীতে আদালত বিষয়টি বিবেচনা করে ভুয়া আইনজীবী সালাউদ্দিনকে হাজতে দিলেন।

x