চেক প্রতারণা মামলায় দুই ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড

আজাদী প্রতিবেদন

শুক্রবার , ২৭ জুলাই, ২০১৮ at ৫:৩২ পূর্বাহ্ণ
452

চেক ডিজঅনারের পৃথক মামলার রায়ে দুই ব্যবসায়ীকে মোট দেড় বছরের কারাদণ্ড ও চেকের সমপরিমাণ প্রায় ৫২ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক। গতকাল বৃহস্পতিবার পৃথক আদালতের বিচারক এ রায় ঘোষণা করেছেন।

অন্যদিকে আরেক ব্যাংকের ৪ কোটি ২৩ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় কারাগারে যেতে হয়েছে আরেক ব্যবসায়ীকে। তিনি গতকাল জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন আদালতের কাছে। সংশ্লিষ্ট আদালত থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, নগরীর ধনিয়ালা পাড়া এলাকার মোহাম্মদ তারেক যমুনা ব্যাংক আন্দরকিল্লা শাখা থেকে বিনিয়োগ গ্রহণ করেন। এরপর পাওনা পরিশোধে বাদী ব্যাংককে আসামির মালিকাধীন জাওয়াদ ট্রেডিং এর হিসাবের বিপরীতে ৫০লাখ টাকার ১টি চেক প্রদান করেন। কিন্তু এ চেক পাস না হয়ে ফিরে আসে। মামলার বাদী প্রতিষ্ঠান এই আসামির বিরুদ্ধে গত ২০১৫ সালের ২৬ জুলাই এনআই এ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় চীফ মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন।

অপরদিকে চকবাজার থানার কাতালগঞ্জ আবাসিক এলাকার বাসিন্দা জাবেদ বিন মাহমুদ বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক জুবিলী রোড শাখা থেকে বিনিয়োগ গ্রহণ করেন। এরপর পাওনা পরিশোধে বাদী ব্যাংককে আসামির মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান মেসার্স ইভান ব্রাদার্স এর হিসাবের বিপরীতে ১লাখ ৬৯ হাজার টাকার ১টি চেক প্রদান করেন। চেকটি ব্যাংকে উপস্থাপন করলে তা ডিজঅনার হয়ে ফিরে আসে। মামলার বাদী ২০১০ সালের ২৪ মে এনআই এ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় চীফ মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে উভয় মামলা বিচার নিষ্পত্তির জন্য ৩য় যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ মোছাম্মৎ বিলকিস আক্তারের আদালতে আসে। আদালত এন.আইএ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারার অপরাধে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরু করেন।

পৃথক মামলার আরজিতে আসামিদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় দুই মামলায় এক বছর ও ৬মাস করে মোট দেড় বছরের কারাদণ্ড দেন আদালতের বিচারক। একইসাথে ২টি মামলার চেকের সমপরিমাণ ৫১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা অর্থদণ্ডেরও আদেশ দেন। উল্লেখ্য, আসামি পলাতক থাকায় গ্রেপ্তার হওয়ার দিন থেকে সাজা কার্যকর হবে বলেও আদেশে উল্লেখ রয়েছে। এদিকে যমুনা ব্যাংক দেওয়ান হাট শাখা কর্তৃপক্ষের দায়েরকৃত ৪ কোটি ২৩ লাখ টাকার অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় দীর্ঘদিনের পলাতক আসামি ব্যবসায়ী নুরুল আবছারের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন বিচারক। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিনের আদালত গতকাল তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। বাদীপক্ষে এ ৩টি মামলা পরিচালনা করেন, এডভোকেট এ.এম জিয়া হাবীব আহসান, এডভোকেট এ.এইচ.এম জসিম উদ্দিন, এডভোকেট দেওয়ান ফিরোজ আহমদ, এডভোকেট প্রদীপ আইচ দীপু, এডভোকেট সাইফুদ্দিন খালেদ, এডভোকেট মোহাম্মদ হাসান আলী প্রমুখ। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট রাশেদুল ইসলাম রাশেদ।

x