চার গুণীকে নিয়ে বিনোদনের রঙের অনুষ্ঠান

আনন্দন প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ৭ মার্চ, ২০১৯ at ৬:২২ পূর্বাহ্ণ

আঞ্চলিক গানের দুই দিকপাল শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব ও শেফালী ঘোষ, সঙ্গীত পরিচালক বানী কুমার চৌধুরী এবং মুক্তিযোদ্ধা সংগীত পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল এই চার কীর্তিমানের কীর্তিগুলো আজীবন দেশবাসীর মনে গেঁথে থাকবে। আঞ্চলিক গানের দুই দিকপাল শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব ও শেফালী ঘোষ তো আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আঞ্চলিক ভাষাকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। বানীকুমার চৌধুরী ও চট্টগ্রামের সংগীতাঙ্গনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। আর বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও সঙ্গীত পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল তো এ দেশের মাটির মানুষ ছিলো। দেশের জন্য তার দেশপ্রেম এবং বাংলা চলচ্চিত্র ও সঙ্গীতাঙ্গনে তার অবদান অতুলনীয়।


মহান এই চার কীর্তিমানকে নিয়ে আজকের যে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বিনোদনের রঙ পরিবার আমি তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। সমপ্রতি চট্টগ্রাম একাডেমীর ফয়েজ নুরজাহান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত শ্রদ্ধাঞ্জলি ও সংগীতানুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন নাজিম উদ্দিন শ্যামল, সভাপতি চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওস্তাদ মিহির লালা অধ্যক্ষ, আর্য্য সংগীত সমিতি। বিশেষ অতিথি অনিন্দ্য টিটু ব্যুারো প্রধান গাজী টি.ভি, আবু তালেব বেলাল সহকারী সম্পাদক, দৈনিক পূর্বদেশ, স্বপন কুমার দাশ কবি ও সংঙ্গীতজ্ঞ, সজল চৌধুরী উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ, জসিম উদ্দিন, উপদেষ্টা বিনোদনের রঙ, আলী আহমেদ শাহীন, প্রধান সম্পাদক বিনোদনের রঙ। বিনোদনের রঙ সম্পাদক নাসির হোসাইন জীবনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিনোদনের রঙের প্রধান উপদেষ্টা লায়ন এম এ মুছা বাবলু এম.জে.এফ। প্রধান বক্তা ওস্তাদ মিহির লালা বলেন, বিনোদনের রঙ আজকে যে ৪জন ব্যক্তিকে নিয়ে অনুষ্ঠান করেছেন তারা সকলেই কীর্তিমান ব্যক্তিত্ব। অথচ আমি মর্মাহত যে এই অনুষ্ঠানে আমাদের চট্টগ্রামের সংগীতাঙ্গনের অনেককেই দেখব বলে আশা করেছিলাম। কিন্তু তাদের অনুপস্থিতি আমাকে কষ্ট দিয়েছে।


আমি বিনোদনের রঙ সম্পাদক নাসির হোসানই জীবনকে বলব মহান এই চার কৃর্তীমানকে স্মরণ করে চট্টগ্রামের সঙ্গীতাঙ্গণকে সম্মানিত করলেন। আমি আপনাকে ধন্যবাদ জানাই। সভাপতির বক্তব্যে লায়ন এম.এম.মুছা বাবলু বলেন বিনোদনের রঙ পরিবারের আমি একজন এবং আজকে মহান চার র্কীতিমানকে নিয়ে স্মরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। গুণীজনকে কদর না করলে গুণীজন জন্মাবেনা। আমি বিনোদনের রঙ কে ধন্যবাদ জানাই মহান এ চার গুণীজনকে নিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করার জন্য। বিশেষ অতিথিবৃন্দ ও এই মহান চার গুণীশিল্পীকে নিয়ে স্মৃতিচারণ মূলক বক্তব্যে বলেন এই চার মহান কীর্তিমান আমাদের অহংকার। তাদেরকে স্মরণ করতে পেরে আমরা সম্মানিত হয়েছি। উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ জসিম উদ্দীন, বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী ইকবাল হায়দার চৌধুরী, দীপেন দে, শিল্পী শাপলা পাল, সাংবাদিক প্রশান্ত বড়ুয়া, মো. লিপটন, সাংবাদিক স.ম. জিয়া আশিক বন্ধু, সজল দাশ, সাংবাদিক মাসুম, রোজী চৌধুরী, মডেল সাগর, গীতিকার ওবায়দুল্লাহ, নাহিদ, কাজল চৌধুরী, রোকন উদ্দীন, অভিষেক দাশ, রনি আচার্য্য, তন্দ্রা দাশ গুপ্তা, চন্দ্রিকা চৌধুরী, শিল্পী হ্যাপি দাশ, লাকি আক্তার, আদ্রিতা গুহ, সাংবাদিক সমিরণ পাল, অমিত কুমার চৌধুরী, কাউচার রাফি, জান্নাতুল ফেরদৌস সোনিয়া সহ আরো অনেকেই। এরপর গানে গানে এই চার কীর্তিমান স্মরণে সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী ইকবাল হায়দার চৌধুরী স্বপ্নন কুমার দাশ, শাপলা পাল, নাসির হোসাইন জীবন, শাহিন রহমান, মাসুদ, হ্যাপি দাশ, লাকী আক্তার ও সমীরণ পাল। উক্ত সংগীতানুষ্ঠানে উপস্থিত সকলের সামনে ভেসে উঠে মহান এ চার র্কীতিমানের কর্মময়জীবনের স্মৃতিগুলো।

x