ঘুমধুম সীমান্তে বিজিবি-চোরাকারবারি গোলাগুলিতে ২ জন নিহত

আগ্নেয়াস্ত্র-মাদক উদ্ধার

বান্দরবান প্রতিনিধি

রবিবার , ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ at ১:৪৯ অপরাহ্ণ
55

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর সঙ্গে মাদক চোরাকারবারীর গোলাগুলিতে ২ জন নিহত হয়েছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে আগ্নেয়াস্ত্র এবং ৪০ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ রবিবার (১৭ নভেম্বর) সকালে এ ঘটনা ঘটে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু-চম্পাকাটা সীমান্ত এলাকায় মাদক চোরাকারবারী চক্রের সদস্যরা অবস্থানের খবর পেয়ে বিজিবি ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক চোরাকারবারি চক্র বিজিবি টহল টিমের উপর গুলি ছোড়ে।

বিজিবি সদস্যরাও পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এসময় বিজিবি’র গুলিতে ২ জন চোরাকারবারী চক্রের সদস্য মারা যায়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ধারণা করা হচ্ছে নিহতরা মিয়ানমারের রোহিঙ্গা।

ঘটনাস্থল থেকে ১টি শর্টগান, ৪০ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বিজিবি ৩৪ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ।

এ বিষয়ে বান্দরবানের পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার বলেন, ‘চম্পাকাটা সীমান্তে টহলে যাওয়া বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে চোরাকারবারি চক্র। আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও পাল্টা গুলি চালালে গোলাগুলিতে ২ জন নিহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে ইয়াবাসহ ২ জনের লাশ এবং মাদকদ্রব্য ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, গত ১১ নভেম্বর নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর সঙ্গে চোরাকারবারী চক্রের আরো এক দফা গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে বিজিবি ৩৪ ব্যাটালিয়নের নিয়ন্ত্রিত বাইশফাড়ি বিজিবি ক্যাম্পের সিপাহী মৃত্যঞ্জয় এবং সিপাহী ফরিদ উদ্দিন পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়।

x