গ্রেপ্তার রোহিঙ্গা নারীর জবানবন্দি

এনআইডি জালিয়াতি

আজাদী অনলাইন

বুধবার , ২১ আগস্ট, ২০১৯ at ১০:১৯ অপরাহ্ণ
898

জালিয়াতির মাধ্যমে তৈরি করা জাতীয় পারিচয়পত্র নিয়ে পাসপোর্টের আবেদন করতে গিয়ে গ্রেপ্তার রোহিঙ্গা নারী আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতোয়ালী থানার এসআই আক্তার হোসাইন জানান, আজ বুধবার (২১ আগস্ট) চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম সরোয়ার জাহানের আদালতে জবানবন্দি দেন ওই নারী। বিডিনিউজ

রমজান বিবি নামের ২৭ বছর বয়সী ওই রোহিঙ্গা নারী লাকী নাম নিয়ে হাটহাজারী উপজেলার মীর্জাপুর ইউনিয়নের একটি ভুয়া ঠিকানা দিয়ে জাল জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি করান। তার পাসপোর্ট আবেদনের তথ্য যাচাই করতে গিয়ে লাকী নামের কাউকে ওই ঠিকানায় না পাওয়ায় পুলিশের সন্দেহ হয়।

এদিকে লাকী তার স্মার্ট কার্ড তোলার জন্য আজিজুর রহমান নামের একজনকে সঙ্গে নিয়ে গত রবিবার জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে যান। সেখানে তার হাতের পুরনো এনআইডিতে ১৭ ডিজিটের নম্বর দেখে নির্বাচন কর্মকর্তাদেরও সন্দেহ হয়।

নির্বাচন কমিশনের সার্ভারে খোঁজ করে দেখা যায় লাকীর পরিচয়পত্রের তথ্য সেখানে সংরক্ষিত আছে কিন্তু তথ্য মিলিয়ে তারা বুঝতে পারেন, সেটি তৈরি করা হয়েছে জালিয়াতির মাধ্যমে।

এরপর রমজান বিবি ওরফে লাকী এবং তার ভাই হিসেবে পরিচয় দেয়া আজিজকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন হাটহাজারী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আরিফুল ইসলাম।

ওই মামলায় সোমবার তাদের আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন।

সেই রিমান্ড শেষে লাকী ও আজিজকে বুধবার আদালতে হাজির করা হয়। সেখানে তারা জবানবন্দি দেয়ার পর বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বলে তদন্ত কর্মকর্তা জানান।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মোহাম্মদ আব্দুর রউফ বলেন, ‘রিমান্ডে ওই নারী জানিয়েছেন, তার আসল নাম রমজান বিবি। ২০১৪ সালে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসার পর তিনি টেকনাফের মুচনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থাকতেন। তার বড় বোন তাসমিন ফাতেমা ২০১৭ সালে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন এবং উখিয়া বালুখালী ক্যাম্পে থাকেন। মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা মো. হাসিম, তার অন্য চার বোন এবং দুই ভাই এখনও মিয়ানমারে আছেন বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন তিনি।‘

পুলিশ কর্মকর্তা রউফ বলেন, ‘নজির আহম্মদ নামে যে ব্যক্তিকে লাকী তার স্বামী বলে দাবি করেছেন তার সাথে মুচনী ক্যাম্পেই তার বিয়ে হয় এবং ওই ঘরে তার যমজ সন্তান আছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন। লাকী বলেছেন, তার স্বামীর সাথে সাত/আট মাস নগরীর বায়েজিদ থানার বার্মা কলোনিতে ছিলেন। আরেকটি বিয়ে করে তার স্বামী সৌদি আরবে চলে যাওয়ার পর বালুখালী ক্যাম্পে বোনের কাছে গিয়ে কিছুদিন থাকেন। পরে স্বামীর পরামর্শে তিনি হাটহজারীতে এক ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করে ভুয়া এনআইডি তৈরি করেন।’

রউফ বলেন, ‘নজির নামের ওই ব্যক্তির বিষয়ে লাকী যা বলেছেন সেই ব্যাপারে পুলিশ এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি। তবে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত অব্যাহত আছে।’

x