গ্রামীণ জনপদে শীতের বার্তা নিয়ে আসে

সৌরভমাখা শিউলি ফুল

মাহবুব পলাশ, মীরসরাই

সোমবার , ২৫ নভেম্বর, ২০১৯ at ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ

প্রকৃতিতে এখন হেমন্তকাল। সকাল আর বিকেলে হিমেল পরশ জানান দিচ্ছে শীতের আগমনী বার্তা। স্নিগ্ধতার আবেশ চারদিকে। নদীর কূলে বাতাসে দুলে দুলে খেলা করছে নানান ফুল ফল আর ধানের ডগায় শিশির বিন্দু। আকাশে ছুটছে মেঘের ভেলা। ঋতুর রানী হেমন্তের এ দিনে মন ভোলানো সুরভিত আরেকটি প্রাকৃতিক সমৃদ্ধতা শিউলি ফুল। বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ফুল। শিউলি ফুল নিয়ে লেখা হয়েছে অনেক কবিতা-গান-গল্প। ভাষাভেদে এ ফুলের অনেক নাম রয়েছে- শেফালিকা, শিউলি, হরশিঙ্গার, পরবুট্টি, সুবহা, শুকাঙ্গী, শীতমঞ্জরী, নাইট জেসমিন, কোরাল জেসমিন ইত্যাদি।
আগের মতো মীরসরাই উপজেলার ও প্রায় গাঁয়ের অধিকাংশ বাড়ীতে শিউলি ফুল এর দেখা মিললেও এখন মন্দির পাড়া বা কোন সৌখিন মুসলিম ছাড়া চোখে পড়ে না ফুলের গাছ। তবু ও উপজেলার নাহেরপুর, করেরহাট, খৈয়াছরা, হাইতকান্দি, সাহেরখালী সহ অনেক গ্রামেই এই ফুল চোখে পড়ার মতো এখনো দেখা মিলে।
তবে স্বর্গীয় ফুল হিসেবে শিউলির রয়েছে আলাদা কদর। যে কারণে শিউলির আরেক নাম পারিজাত বা স্বর্গীয় ফুল। হিন্দু ধর্মের মনীষীরা মনে করেন স্বর্গ থেকে কৃষ্ণ শিউলি ফুলগাছ তুলে এনে ইন্দিরা দেবীর বাগানে রোপণ করেছিলেন। যার কারণে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের পূজাপার্বণে শিউলি ফুল অন্যতম উপকরণ। এছাড়াও বাঙালি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের পরতে পরতে মিশে আছে শিউলি ফুল।
শিউলির ইংরেজি নাম- Night-flowering jasmine উদ্ভিদ তাত্ত্বিক নাম- Nyctanthes arbor tristis. এ নাম নিয়েও আছে গ্রিক উপাখ্যান। সূর্যের প্রতারিত স্ত্রী শিউলি। সূর্যদেব সুন্দরী শিউলিতে তৃপ্ত না হয়ে অন্য নারীতে আসক্ত হলে শিউলি প্রচন্ড ঘৃণায় তাকে ত্যাগ করেন। সূর্যের স্ত্রী হয়েও তিনি চিরদুঃখী। তাই এর নাম ‘নিশি বিষাদিনী’। Nyctanthes অর্থ নিশিপুষ্প আর arbor tristis. অর্থ বিষাদিনী। তাই বুঝি গভীর অভিমানে শিউলি সূর্য ওঠার আগেই ঝরে পড়ে।
শিউলির আদি নিবাস ভারতে। তবে দক্ষিণ এশিয়ার দক্ষিণ-পূর্ব থাইল্যান্ড থেকে পশ্চিমে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, উত্তরে নেপাল অঞ্চল পর্যন্ত শিউলি ফুলের দেখা পাওয়া যায়। শিউলি গাছের শাখা-প্রশাখা ও কান্ড মাঝারি শক্ত মানের। উচ্চতা প্রায় ৫ থেকে ৭ মিটার। মোটামুটি সব ধরনের মাটি এবং রৌদ্রোজ্জ্বল স্থানে শিউলি গাছ ভালো জন্মে। পাতার রং সবুজ, মধ্যশিরা স্পষ্ট, অগ্রভাগ সূঁচালো। গাছের পাতাগুলো ৬ থেকে ৭ সেন্টিমিটার লম্বা ও সমান্তরাল প্রান্তের বিপরীতমুখী থাকে। শিউলি ফুলে রয়েছে পাঁচ থেকে সাতটি সাদা বৃত্তি ও মাঝে লালচে-কমলা টিউবের মতো বৃন্ত।
মিষ্টি সুগন্ধির শিউলি ফুল কেবল দেখতেই সুন্দর নয়, এর রয়েছে অনেক ভেষজ গুণ। ফুলের বীজ খুশকি দূর করে। পাতা কৃমিনাশক। শিউলি পাতার রস জ্বর নিরাময়েও কার্যকরী। এছাড়াও বিভিন্ন আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরিতে শিউলির ফুল, পাতা ও বাকল ব্যবহার করা হয়।

x