গ্রামই প্রাণ

মোঃ সাইমুন

বুধবার , ২০ নভেম্বর, ২০১৯ at ৩:১১ পূর্বাহ্ণ
110

বাংলার রূপ দেখতে হলে সবার ফিরে যেতে হবে গ্রামে। শীতের সকালে কাক ডাকা ভোরে মৃদু বাতাস, শিশির বিন্দুর ওপর সূর্যের রশ্মি পড়ে এক অপরূপ সৌন্দর্য সৃষ্টি করে। শান্ত নদীর বয়ে চলা স্রোতে নৌকা। পুকুরের মাঝখানে খুঁটি উপর বসে মাছরাঙা আর সাদা বকের মাছ শিকারের দৃশ্য। সবুজ শ্যামল মাঠ, দীঘির জলে খেলা করা হাঁস- অপূর্ব সৌন্দর্য বিরাজ করে। কৃষক মাঠে তার শিল্প বুনে, সন্ধ্যা হলে বাড়ি ফিরে। সন্ধ্যায় পশ্চিমা আকাশে লাল সূর্যের বিদায়ী দৃশ্য আর চাঁদনি রাতের প্রকৃতি এক মায়াময় সৌন্দর্য। গ্রামের যে দিকে তাকানো হয় সেদিকেই দেখা যাই শস্য- শ্যামলা ক্ষেত, ফুলে-ফলে ভরা গাছপালা, আর সবুজের সমুদ্র। রূপামাধুরী গ্রাম ছেড়ে যান্ত্রিক শহরে চলে আসা গভীর ভাবের প্রকাশ ঘটায়। প্রাকৃতিক পরিবেশ ছেড়ে এক যেন কৃত্রিম পরিবেশে জোর করে মানিয়ে নিতে হয় নিজেকে।
যন্ত্রের মত চলমান এই শহরে সবাই নিজ কাজে, নিজেকে নিয়ে মগ্ন। নিত্য সঙ্গে মোবাইল,টেলিভিশন। কৃত্রিম পরিবেশে চার দেওয়ালে জীবন কাটিয়ে না দিয়ে আমাদের সবার উচিত গ্রাম বাংলার রূপ উপভোগ করা। পাহাড়ের আঁকাবাঁকা, উঁচুনিচু পথ মনোমুগ্ধকর দৃশ্য চোখে পড়ে তা বিস্মৃত হবার নয়। মনে হবে সৃষ্টিকর্তা তার সমস্ত সৌন্দর্যের ভান্ডার দিয়ে সাজিয়ে দিয়েছেন গ্রাম বাংলাকে।

x