গোলাপি উৎসবে প্রথম দিনেই বিবর্ণ বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শনিবার , ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ at ৩:৩৪ পূর্বাহ্ণ
26

মাঠের বাইরে নানা চমকে মুখরিত ছিল কলকাতায় ইডেন গার্ডেন্সে আয়োজিত ভারত-বাংলাদেশের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ। কিন্তু মাঠের ভেতরে ছিল বাংলাদেশের জন্য হতাশাময় একটা দিন। গোলাপি বলে দিবা-রাত্রির ম্যাচ নিয়ে শংকা ছিল বাংলাদেশ দলে। মাঠের ভেতরে সে শংকা বাস্তবে পরিণত হয়েছে টাইগারদের চরম ব্যাটিং ব্যর্থতায়। তাই প্রথম দিনটা ভুলেই যেতে চাইবে প্রথমবারের মতো গোলাপি বলে টেস্ট খেলতে নামা বাংলাদেশ। টস জিতেও ব্যাটিং বেছে নেওয়ার মতো ভুল সিদ্ধান্তের পর ভয়াবহ ব্যাটিং বিপর্যয় এবং পরে বাজে বোলিং আর ফিল্ডিং মিলিয়ে যাচ্ছেতাই একটা দিন কাটল মুমিনুলদের। অথচ একই পিচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ৬৮ রানের লিড তুলে নিয়েছে কোহলিরা। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ১০৬ রানের বিপক্ষে ভারত দিন শেষ করেছে ৩ উইকেটে ১৭৪ রান তুলে।
এবারও টস জিতে ব্যাটিং বেছে নেয়ায় বাংলাদেশের সিদ্ধান্তটা রহস্যময় হয়েই থাকল। যেমন রহস্য হয়ে থাকল লিটন দাসের একাদশে সুযোগ পাওয়া। দৃষ্টি-পরীক্ষায় (ভিশন টেস্ট) ধরা পড়েছে এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান গোলাপি বলের রং চিনতে পারছিলেন না। নেট বোলার ইরফানের বলে নয়বার বোল্ড হন তিনি। এরপর মাঠে ব্যাটিংয়ের সময় মাথায় আঘাত পেয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া তার দলে থাকা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
গতকাল শুক্রবার ইডেন গার্ডেন্সে বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায় শুরু হয় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের দলপতি মুমিনুল হক। স্পোর্টিং উইকেট তৈরি হলেও বাংলাদেশ গুটিয়ে গেছে মাত্র ৩০.৩ ওভারে ১০৬ রান তুলে। ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের সপ্তম ওভারে ইশান্ত শর্মার বলে এলবির ফাঁদে পড়েন ইমরুল কায়েস। প্রথম বলে রিভিউ নিয়ে বেঁচে গেলেও তৃতীয় বলে রিভিউ নিয়েও আর বাঁচতে পারেননি। দলীয় ১৫ রানের মাথায় বিদায় নেন ইমরুল (৪)। এরপর শুন্য রানেই বিদায় নেন মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন ও মুশফিকুর রহিম। ২৬ রানে ৪ উইকেট হারানো বাংলাদেশের স্কোর বোর্ডে আর ১২ রান যোগ হতেই উমেশ যাদবের তৃতীয় শিকার হয়ে বিদায় নেন ওপেনার সাদমান ইসলাম (২৯)। বিপাকে পড়া দলকে ভরসা দিচ্ছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং লিটন দাস। কিন্তু ইশান্ত শর্মার বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন মাহমুদউল্লাহ (৬)। এদিকে শামির বাউন্সে মাথায় বলের আঘাত লাগায় আম্পায়ারের অনুমতি নিয়ে ক্রিজ ছাড়েন লিটন। রিটায়ার্ড হার্ট হওয়ার আগে তিনি করেন ২৪ রান। কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে লিটনের জায়গায় আসেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে, বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি। ইশান্ত শর্মার চতুর্থ শিকার হওয়া মিরাজ ফেরেন ১৩ বলে ৮ রান করে। এর আগে এবাদত হোসেনের ব্যাট থেকে আসে ১ রান। দলীয় ১০৫ রানে নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে বিদায় নেন নাঈম হাসান। ইশান্ত শর্মার পঞ্চম শিকার হয়ে ফেরার আগে তিনি ২৮ বলে করেন ১৯ রান। এরপর শামির বলে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে বিদায় নেন আবু জায়েদ রাহি (০)। লিটন দাস ছাড়াও শামির বাউন্সে মাথায় আঘাত পেয়েও খেলা চালিয়ে যাওয়া নাঈম হাসানের কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে মাঠে নেমেছেন তাইজুল ইসলাম। লিটনের বদলি হিসেবে নামা মিরাজ ব্যাটসম্যান না হওয়ায় বোলিং করতে পারবেন না। তবে তাইজুল পারবেন। কারণ নাঈম নিজে একজন স্পিনার। অর্থাৎ টেস্টের প্রথম দিনেই দুজনকে কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে নামায় বাংলাদেশ। ভারতীয় বোলারদের মধ্যে গোলাপি বলে প্রথম ৫ উইকেট তুলে নেওয়ার কীর্তি গড়েন ইশান্ত শর্মা। এছাড়া উমেশ যাদব তিনটি আর মোহাম্মদ শামি দুটি উইকেট তুলে নেন।
ফিল্ডিংয়ে নেমে শুরুতে ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। মেহেদী হাসানের হাতে ক্যাচ তুলে দিতে বাধ্য করে স্বাগতিক দলের ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে বিদায় করেন আল-আমিন হোসেন। বাংলাদেশের হয়ে গোলাপি বলের টেস্টে কোনো বোলারের প্রথম উইকেটপ্রাপ্তির কীর্তিও এখন এই ডানহাতি পেসারের দখলে। তবে নিজে উইকেট নিলেও ফিল্ডিংয়ে প্রায় সর্বনাশ করে ফেলেন আল-আমিন। আবু জায়েদের করা ভারতীয় ইনিংসের ১২তম ওভারে রোহিতের ক্যাচ ফেলে দেন তিনি। রোহিতের পুল শটে বল উড়ে গিয়ে ফাইন লেগে থাকা আল-আমিনের হাতে গিয়ে পড়ে। কিন্তু সবাইকে হতভম্ব করে দিয়ে এই সহজ ক্যাচও ফেলে দেন তিনি। তবে বড় কোনো মূল্য দেওয়ার আগেই রোহিতকে (২১) বিদায় করেন এবাদত। ২ উইকেট হারিয়ে অবশ্য ভারত দমে যায়নি। বরং চেতেশ্বর পূজারাকে নিয়ে ৯৪ রানের জুটি গড়ে দলকে লিড এনে দেন বিরাট কোহলি। দুর্দান্ত ব্যাটিং করতে থাকা পূজারাকে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানিয়ে ফেরান এবাদত। স্লিপে থাকা শাদমান ইসলামের হাতে ক্যাচ দেওয়ার আগে ৮ চারে সাজানো ৫৫ রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি। পূজারা বিদায় নিলেও দারুণ ব্যাটিংয়ে ফিফটির দেখা পান কোহলি। এর মাঝে টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে ৫ হাজার রানের চূড়া ছুঁয়েছেন তিনি। দিনশেষে ৫৯ রানে কোহলি আর ২৩ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন আজিঙ্কা রাহানে। ভারতের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৭৪ রান।

x