ক্লাবের জুয়াড়ি এখন বাসাবাড়ি, হোটেলে!

অ্যাকশনে পুলিশ

সোহেল মারমা

মঙ্গলবার , ৫ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:৫৬ পূর্বাহ্ণ

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানের পর থেকে নগরীতে জুয়ার আসর বসা বিভিন্ন ক্লাব বর্তমানে বন্ধ রয়েছে। তবে এখন গোপনে বিভিন্ন বাসা-বাড়ি ও হোটেলে জুয়ার আসর বসছে বলে অভিযোগ পুলিশের। ইতোমধ্যে কয়েকটি জায়গায় তারা অভিযানও চালিয়েছে।
নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ কমিশনার (বন্দর) এস এম মোস্তাইম হোসাইন আজাদীকে বলেন, চট্টগ্রামে ক্যাসিনোর মতো জুয়া খেলার কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই। তবে বিভিন্ন ক্লাবে তাসের মাধ্যমে জুয়া খেলা চলছিল। সেগুলোও সম্প্রতি অভিযানের পর বন্ধ হয়ে গেছে। বর্তমানে জুয়াড়িরা যে যার মতো পালিয়েছেন। তবে এখন বিভিন্ন বাসা ও হোটেলে জুয়ার আসর বসার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট তথ্য পেলে আমরা সেখানে অভিযান চালাচ্ছি। গত রোববারও আকবর শাহ এলাকায় একটি বাসায় অভিযান চালানো হয়েছে।
জানা গেছে, গত রোববার রাত ১০টা নাগাদ নগরীর আকবর শাহ থানাধীন এক নম্বর রোডে ‘রিম ভিলা’ নামে একটি ভবনের নিচতলায় অভিযান চালিয়েছিল নগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম। এসময় সেখানে ১১ জনকে আটক করা হয়। তবে পরে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বাকিদের ছেড়ে দেওয়া হয়। জানতে চাইলে নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ কমিশনার(বন্দর) এস এম মোস্তাইম হোসেন বলেন, সেখানে একটি কক্ষে তাস দিয়ে জুয়া খেলা চলছিল। সেটা বড়সড় কোনো জুয়ার আসর ছিল না। আসরটি বসেছে বেশিদিন হয়নি। আমরা ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছি।
নগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার উক্যশিং আজাদীকে বলেন, ওখানে সবাই তো জুয়া খেলায় অংশগ্রহণ করেনি। অনেকেই সেখানে দর্শক হিসেবে এসেছিলেন। এজন্য ডিবির টিম যাচাই-বাছাই করে বড় বড় জুয়াড়িদের আটক করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।
পুলিশ জানায়, গত আট/নয় দিন ধরে ‘রিম ভিলা’ নামে সাততলা ভবনের ওই বাড়ির নিচতলায় নিয়মিত জুয়ার আসর বসছিল। বাড়িটি সৌদি প্রবাসী এক ব্যক্তির মেয়ের নামে। ওই মেয়ের জামাই রিপন আহমেদ বর্তমানে বাড়িটি দেখাশোনা করছেন। রিপনের মূল বাড়ি উত্তর হালিশহরের সুন্দরি পাড়ায়। ডিবির অভিযানে জুয়ার আসর থেকে হাতেনাতে প্রথমে তাকেসহ মোট ১১ জনকে আটক করা হয়েছিল। তবে রিপন আহমেদ গতকাল রাতে মুঠোফোনে আজাদীকে বলেন, বাসাটি তিনি দেখাশোনা করলেও সেখানে জুয়ার আসর বসার অভিযোগটি সঠিক নয়। তবে ওই বাসায় ডিবি পুলিশের অভিযানের বিষয়টি রিপন স্বীকার করেন। এর কয়েকদিন আগে কর্ণফুলী এলাকা থেকে কয়েকজন জুয়াড়িকে আটক করে পুলিশ।
এদিকে শুধু ওই ফ্ল্যাট বাসাটিতে জুয়ার আসর বসছে শুধু তা নয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হালিশহরের বড়পোলে একটি হোটেল, ছোটপুল বলুয়ার কলোনির এক জুয়াড়ির বাসাসহ আশপাশে আরও কয়েকটি এলাকায় জুয়ার আসর বসছে। এছাড়া খুলশীসহ বিভিন্ন আবাসিক এলাকার ফ্লাট বাড়ি ও নামে-বেনামে বিভিন্ন হোটেলগুলোতে জুয়ার আসর বসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওইসব আসরে জুয়া খেলতে যাচ্ছেন বড় বড় জুয়াড়িরা।

x