ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের পেছনে বিশেষ মহলের চক্রান্ত

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান

আজাদী অনলাইন

মঙ্গলবার , ২২ অক্টোবর, ২০১৯ at ৫:০৯ অপরাহ্ণ
363

ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের পেছনে বিশেষ মহলের চক্রান্ত আছে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান।

১১ দফা দাবিতে এ ধর্মঘটে ক্রিকেটারদের দু-একজন জড়িত আছে বলেও ধারণা তার।

ক্রিকেটারদের দাবি-দাওয়া নিয়ে সরাসরি কিছু না জানালেও তিনি জানিয়েছেন, আলোচনার দুয়ার খোলা আছে। ভারত সফর সময়মতো হবে বলেই আশাবাদ তার।

তবে ক্রিকেটাররা যদি বৃহস্পতিবার থেকে নির্ধারিত জাতীয় লীগের তৃতীয় রাউন্ডে না খেলে এবং ভারত সফরের ক্যাম্পে যোগ না দেয় তাহলেও নিজেদের করণীয় কিছু দেখছেন না বিসিবি সভাপতি। সেক্ষেত্রে ভারত সফর নিয়ে বড় ধরনের অনিশ্চয়তা থেকেই গেল। বিডিনিউজ

ক্রিকেটারদের ধর্মঘট নিয়ে আজ মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) বিসিবিতে বোর্ড পরিচালকদের সঙ্গে এক জরুরি সভায় বসেছিলেন নাজমুল হাসান। সভার পর এক সুদীর্ঘ সংবাদ সম্মেলেনে এসব কথা বলেন তিনি।

ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবির অনেকগুলোই পূরণ করা হয়েছে বা হওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে দাবি করেন বোর্ড প্রধান।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে বিসিবি প্রধানের লম্বা বক্তব্য দিয়ে শুরু হয় সংবাদ সম্মেলন। শুরুতেই নাজমুল হাসান বলেন, ক্রিকেটারদের ধর্মঘট তার বিশ্বাসই হচ্ছে না।

তিনি বলেন, ‘দাবি ওরা জানাতেই পারে। খুবই ন্যাচারাল কিন্তু সেটির জন্য তারা স্ট্রাইকে গেছে, এটা এক্সট্রিমলি শকিং। আমার বিশ্বাসই হচ্ছে না, আমাদের খেলোয়াড়দের কাছ থেকে এমন কিছু হতে পারে।’

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘ওদের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক আছে। আমার চেয়ে বেশি মনে হয় না কেউ যোগাযোগ রাখে। ব্যক্তিগত সম্পর্ক থেকে শুরু করে সবকিছুতে কথা হয়। আমি তো বহুদূর, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছেও ওদের অ্যাকসেস আছে। বলার কিছু থাকলে ওরা বলতে পারত।’

বিসিবি সভাপতির নিজের বক্তব্য ও নানা প্রশ্নে তার উত্তরে বারবার ঘুরে ফিরে এসেছে বিশেষ মহলের ষড়যন্ত্র, চক্রান্তের কথা।

তিনি আরো বলেন, ‘ওরা তো চাইলেই পাবে, আসেনি কেন? আমাদের কাছে চাচ্ছে না কেন? ফোন ধরছে না। সবকিছুর পেছনে কারণ আছে। আমাদের কাছে না গিয়ে মিডিয়ায় বলেছে, সেটির পেছনে বিশেষ কারণ আছে। আমাদের সুযোগ না দিয়ে মিডিয়ায় গিয়েছে। এটি বিশেষ একটি পরিকল্পনার অংশ।’

বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান বলেন, ‘পরিকল্পিতভাবে করা হচ্ছে। একজন লোকই আছেন যিনি বারবার এসব করছেন। বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত চলছে। এই ষড়যন্ত্রের কথা সরকার থেকে শুরু করে সবাই জানে। সব ক্রিকেটার এটির সঙ্গে জেনে শুনে জড়িয়েছেন বলে মনে হয় না। ১-২ জন জানতে পারে। এই মুহূর্তে বের করা দরকার, কারা এই কাজ করছে। কিছুদিনের সময় চাচ্ছি আপনাদের কাছে। সব বের করে ফেলব।’

মাঠের ক্রিকেট নিয়ে মূল প্রশ্ন ছিল দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা জাতীয় লীগের তৃতীয় রাউন্ড ও ভারত সফরের প্রস্তুতি ক্যাম্পের নির্ধারিত সময় নিয়ে। বিসিবি সভাপতির কথায় আশা ও শঙ্কা, দু’টির জায়গাই থাকল।

তিনি বলেন, ‘খেলোয়াড়রা না খেললে খেলবে না! আমাদের কিছু করার নেই। ওরা ক্যাম্পে গেলে ভালো, না গেলে যাবে না। ক্রিকেটারদের ব্যবহার করা হচ্ছে। তারা নিজেরাও জানে না। ২-১ জন জানতে পারে। আমার দুয়ার ওদের জন্য খোলা। ওরা যদি আমার কাছে আসে, অবশ্যই কথা হবে। আমি তো কথা বলতেই চাই। আমি আশা করি ক্যাম্প চলবে, ভারত সফর হবে।’

x