কিশোরীকে আটকে রেখে ৭ দিন ধরে ধর্ষণ, নির্যাতন

গ্রেপ্তার ৬, দুই আসামির জবানবন্দি

সবুর শুভ

বুধবার , ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ at ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ
2013

সংসার গড়ার স্বপ্নে এক টেক্সি চালকের সঙ্গে পালিয়ে গিয়ে প্রতারণার শিকার হওয়া কিশোরী পোশাক কর্মীকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের মামলায় দুজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে আদালতে। অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মহিউদ্দিন মুরাদের সামনে এ দুজন জবানবন্দি দেয়। তারা হচ্ছে টেক্সি চালক মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন ও তানিয়ার নানী ফিরোজা বেগম। গত সোমবার রাতে খবর পেয়ে পুলিশ ফুপুর বাসা থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে। টেক্সি চালক নিজামকে (৩০) আগ্রাবাদের একটি গ্যারেজ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। অন্যদের গ্রেপ্তার করা হয় বাসা থেকে। তারা হলো নিজামের স্ত্রী তানিয়া বেগম (২৭), তানিয়ার বোন সোনিয়া বেগম (২২), সোনিয়ার স্বামী মো. লিটন (২৯) তাদের খালা পপি বেগম (৩০) ও নানী ফিরোজা বেগম (৬৫)। এ ঘটনায় ব্যবহৃত কাঁচি, মোবাইল ফোন ও বাদীর স্বাক্ষর করা সাদা কাগজটি জব্দ করা হয়েছে। এই ঘটনায় কিশোরী বাদী হয়ে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।
এদিকে, নিজামের স্ত্রী তানিয়া, তার বোন সোনিয়া, তার স্বামী লিটন ও খালা পপি বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ডে আনার আবেদন জানানো হয়েছে। আদালত তাদের কারাগারে পাঠিয়ে পরে শুনানি করার কথা জানিয়েছে।
নিজাম ও ফিরোজা বেগমের জবানবন্দির বরাত দিয়ে সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন জানান, ওই কিশোরীকে আটকে রেখে সাতদিন ধরে ধর্ষণ করে টেঙি চালক নিজাম। সেই সাথে চালকের স্ত্রী ও স্বজনরা কিশোরীর ওপর নির্যাতনও করে। তাকে মারধর করে চুল কেটে দেওয়া হয়। মুখে দেওয়া হয় সিগারেটের ছ্যাঁকা।
দুই বছর আগে কিশোরীর মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা আবার বিয়ে করেন। এরপর ২০১৭ সালের নভেম্বরে গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রাম শহরে ফুপুর বাসায় চলে আসে ওই কিশোরী। তবে তার ছোট বোন বাবা ও সৎ মায়ের সঙ্গে কুমিল্লায় থাকে। তার বাবা রিকশাচালক। ২০১৮ সালে কোরবানির ঈদের সময় নিজামের সঙ্গে ওই কিশোরীর পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। নিজাম তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয়। পরে নিজাম ওই কিশোরীকে নগরীর চৌমুহনী এলাকায় নাজিরবাড়িতে একটি ভাড়া বাসায় তোলে।
নিজামের আগের স্ত্রী ও অন্যরা মারধর করে চুল কেটে দেয় ওই কিশোরীর। মুখে সিগারেটের ছ্যাঁকা দেয়। তারপর সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়। ভিডিও করার কথাও জবানবন্দিতে এসেছে।

x